লিঙ্গ পরিবর্তন করে চাকরি গেল ভারতীয় নৌসেনার

1

লিঙ্গ বদলে রীতিমতো বিপাকে পড়েছেন ভারতীয় এক নৌসেনা। মণীষ গিরি নামের ওই ভারতীয় নাবিক গত বছর লিঙ্গ পরিবর্তন করে নারী হয়েছিলেন। যে কারণে সম্প্রতি তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ভারতীয় নৌসেনা সূত্রে জানা গেছে, সাত বছর আগে তিনি যখন প্রথম চাকরিতে যোগ দেন তখন তাকে পুরুষ হিসেবেই নেওয়া হয়েছিল। তারপর লিঙ্গ পরিবর্তন করে নিয়ম লঙ্ঘন করেছেন তিনি।

এদিকে, বর্তমানে লিঙ্গ পরিবর্তন করে মাথায় লম্বা চুল এবং শাড়ি পরছেন মণীষ। নিজের নাম বদলে রেখেছেন সাবি।

মণীষ ওরফে সাবি জানিয়েছেন, শুধু লিঙ্গ পরিবর্তনের জন্য তাঁকে কেন বরখাস্ত করা হবে? তিনি তো চোর বা জঙ্গি নন। নিজের কাজ ঠিকমতোই পালন করছেন তিনি। তাহলে কেন বরখাস্ত হবেন? এই নিয়ে বিচার চেয়ে লড়াই করবেন বলেও জানিয়েছেন।

সাবি বলেন, এভাবে বরখাস্ত করাটা অন্যায়। বর্তমানে অকল্পনীয় মানসিক চাপের মধ্যে রয়েছেন তিনি। প্রয়োজনে আইনি লড়াইয়ে সুপ্রিম কোর্টেও যেতে চান তিনি।

মণীষ আরো জানান, ছয় মাস তাঁকে সাইকিয়াট্রিক ওয়ার্ডে ভর্তি রেখেছিল নৌসেনা। তিনি জন্মসূত্রে পুরুষ হলেও নিজেকে নারী হিসেবেই মনে করতেন তিনি। তাই নিজেকে তাঁর ইচ্ছের বিরুদ্ধে পুরুষ পরিচয়ের মধ্যে আটকে রাখা তাঁর অধিকার হনন বলেও মনে করেন তিনি। যে কারণে লিঙ্গ পরিবর্তন করে নারী হন তিনি।

জানা গেছে, ভারতীয় নৌসেনা গত শুক্রবার মণীষকে বরখাস্ত করার চিঠি দিয়েছে। নৌসেনা জানিয়েছে, মণীষ ছুটিতে থাকাকালীন নিজের ইচ্ছেয় লিঙ্গ পরিবর্তন করেছেন।

অথচ ভারতীয় নৌবাহিনীতে কাজে যোগ দেওয়ার সময় তিনি পুরুষ ছিলেন। নারী হওয়ায় ভারতীয় নৌসেনায় নাবিক হওয়ার জন্য যে চাকরির যোগ্যতা তা লঙ্ঘন করেছেন তিনি।

এদিকে, চাকরি চলে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন মণীষ। জানা গেছে, বাড়িতে তাঁর স্ত্রী ও এক সন্তানও রয়েছে। এই অবস্থায় চাকরির সাত বছরের মাথায় লিঙ্গ পরিবর্তন করে তাঁর বরখাস্ত হওয়ায় তিনি পেনশন পাবেন না। কারণ, পেনশনের জন্য ন্যূনতম ১৫ বছর চাকরি করতে হয়।

খবরঃ ডেইলি সানশাইন

Share.



1 Comment

Open