১৮ বছরের নিচে স্ত্রীর সঙ্গে দৈহিক সম্পর্ক ধর্ষণ

5

৫ থেকে ১৮ বছরের নিচে নাবালিকা স্ত্রী’র সঙ্গে দৈহিক সম্পর্ক ধর্ষণের সামিল বলে রায় দিয়েছেন ভারতের সুপ্রীমকোর্ট। বুধবার সুপ্রীমকোর্টের বিচারপতি মদন বি লোকু ও বিচারপতি দীপক গুপ্তার যৌথ বেঞ্চ এই রায় দেয়।

নাবালিকা বিয়ে রুখতেই সুপ্রিমকোর্টের এমন রায় বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এতদিন ভারতীয় দণ্ডবিধি অনুযায়ী, ১৮ বছরের নিচে কোন নাবালিকার সঙ্গে দৈহিক সম্পর্ক করলে তা অপরাধের সামিল বলে ধরা হত। ব্যতিক্রম, ওই নাবালিকা তার স্ত্রী হলে আইনি সুরক্ষা কবচ পেতেন স্বামী। সেই ধারার কথা উল্লেখ করে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, ৩৭৫ নম্বর ধারার ২নং অনুচ্ছেদ অনুযায়ী নাবালিকা স্ত্রীর সঙ্গে দৈহিক সম্পর্ককে ধর্ষণ বলে গণ্য করা হবে। কোর্টের পর্যবেক্ষণ, ধর্ষণ আইনে যে ব্যতিক্রম রয়েছে তা একতরফা ও বৈষম্যমূলক।

১৮ বছরের নিচে মেয়েদের বিয়ে দেওয়া আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। কিন্তু আইনকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে নাবালিকা মেয়েদের বিয়ে দেওয়ার ঘটনা আকছার ঘটে চলেছে।

এক সমীক্ষা বলছে, ভারতে এই মুহূর্তে ২.৩ কোটি ‘বালিকা বধূ’ আছে। সুপ্রিমকোর্টে পিটিশন দায়ের করে তাদের ইচ্ছার বিরুদ্ধে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন বন্ধ করতে এফআইআর দায়েরের অধিকার দেওয়ার কথা বলা হয়।

অন্যদিকে, দেশের সামাজিক পরিস্থিতির কথা তুলে ধরে কেন্দ্র শীর্ষ আদালতকে জানায়, বাল্য বিবাহ বাস্তব ঘটনা। কিন্তু বাল্যবিবাহ নিয়ে কেন্দ্রের কোনও যুক্তি আদালতের ধোপে টেকেনি। বাল্য বিবাহ নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে দুই বিচারপতি।

শীর্ষ আদালত জানায়, ১৫ থেকে ১৮ বছরের মধ্যে কোন নাবালিকার বিরুদ্ধে দৈহিক সম্পর্ক স্থাপন করলে তা ধর্ষণ বলে গণ্য করা হবে। এক্ষেত্রে নাবালিকা স্ত্রী থানায় গিয়ে অভিযোগ জানালে স্বামীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা দায়ের করা হবে। আদালত আরও জানায় এক বছরের মধ্যে এই অভিযোগ জানাতে হবে।

খবরঃ ডেইলি সানশাইন

Share.



5 Comments

  1. Sanjoy Kumar Sarkar

    ধর্ষণের সজ্ঞা অনুসারে ইহা ধর্ষণ।।। সম্মতি বা অসম্মতিক্রমে, যেভাবেই হোক।।

  2. মোঃওমর আল যায়িদ

    আর কতো পশ্চিমা আইন আসবে ছি ছি আর আমরা তো এই নিয়ে মাখামাখি করবো 18 নিচে বিয়ে করা জাবে না bat শারীরক সম্পকটা রাখা জাবে সাবাস বাংলাদেশ

Open