রাজশাহীতে দুদক কর্মকর্তা সাময়িক বরখাস্ত

1

দায়িত্বে অবহেলায় রাজশাহী দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সহকারী পরিচালক আমিনুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

নওগাঁর একটি মামলার আলামত হিসেবে তার কাছে থাকা টাকা হারিয়ে যাওয়ার ঘটনায় দুদকের প্রধান কার্যালয় থেকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (১০ অক্টোবর) বিকেলে রাজশাহী দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উপ-পরিচালক শেখ ফাইয়াজ আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

সাময়িক বরখাস্তের পর আমিনুর রহমানকে বিভাগীয় কার্যালয়ে সংযুক্ত করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে দুদক সূত্রে জানা যায়, ২০১৫ সালের ২৩ আগস্ট নওগাঁয় জেলা মৎস্য কর্মকর্তা ওবাইদুল্লাহকে তার কার্যালয় থেকে ১০ হাজার টাকা ঘুষ নেওয়ার সময় হাতেনাতে গ্রেফতার করে দুদক।

নওগাঁ মৎস্যবীজ উৎপাদন খামার ব্যবস্থাপক মাহফুজার রহমান জেলা মৎস্য অফিস থেকে ভবিষ্যৎ তহবিলের টাকা উত্তোলনের জন্য জেলা কর্মকর্তা ওবাইদুল্লাহের কাছে আবেদন করলে তিনি তার কাছে থেকে ঘুষ বাবদ ৩০ হাজার টাকা দাবি করেন।

এক পর্যায়ে ১০ হাজার টাকা চুক্তি হয়। এরপর খামার ব্যবস্থাপক মাহফুজার রহমান বিভাগীয় দুদক অফিসে অভিযোগ দেন। এর প্রেক্ষিতে জেলা মৎস্য কর্মকর্তার নিজ কার্যালয় থেকে ঘুষ নেওয়া ১০ হাজার টাকাসহ ওবাইদুল্লাহকে গ্রেফতার করা হয়।

ওই মামলায় নওগাঁর গ্রেফতার মৎস্য কর্মকর্তার কাছ থেকে জব্দ করা এক হাজার টাকার ১০টি নোট আলামত হিসেবে সহকারী পরিচালক আমিনুর রহমানের হেফাজতে ছিল। নির্দিষ্ট নম্বরের নোটগুলোর কথা মামলার এজাহারে উল্লেখও করা হয়।

কিন্তু সম্প্রতি হাজার টাকার জব্দ করা নোট ১০টি তদন্ত কর্মকর্তার কাছ থেকে গায়েব হয়ে যায়। বিষয়টি দুদকের অভ্যন্তরীণ তদন্তে ধরা পড়ে। আমিনুর রহমানকে দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে শোকজ করা হয়। কিন্তু তার দেওয়া জবাব অগ্রহণযোগ্য হয়। পরে দায়িত্বে অবহেলা করার অভিযোগে মঙ্গলবার তাকে সাময়িক বরখাস্তের আদেশ দেওয়া হয়েছে।

খবরঃ বাংলানিউজ

Share.



Open