আধুনিক ফটোথেরাপি ডিভাইস উদ্ভাবন করলেন রাজশাহীর তিন ভাই-বোন

1

জন্মের পর নবজাতকের জন্ডিসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু থেকে বাচাঁতে রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) শিক্ষার্থী তিন ভাই-বোন মিলে উদ্ভাবন করলেন আধুনিক ফটোথেরাপি ডিভাইস। তারা হলেন তড়িৎ কৌশল বিভাগের সাদলী সালাউদ্দিন তার ছোট ভাই সারুফ সালাউদ্দিন ও বড় বোন জেরিদা ওয়াজিফা ফেমী।

সাদলী জানান, আমাদের দেশে জন্মের পর জন্ডিসে আক্রান্ত হয়ে অনেক শিশু মারা যায়। শিশুর জন্মের পর যকৃত পুরোপুরি কার্যকর হয়ে উঠতে একটু দেরী হলে যকৃতে বিরিলুবিনের মাত্রা বেড়ে যায়। এতে জন্মগতভাবেই ৭০-৮০ ভাগ শিশু জন্ডিসে আক্রান্ত হতে পারে। তাই এই সময় শিশুদের ফটোথেরাপি দেয়া বাধ্যতামূলক। কিন্তু আমাদের দেশে যে ফ্লুরোসেন্ট লাইট ব্যবহার করে ফটোথেরাপি দেয়া হয় তা আদর্শ মানের তরঙ্গ দৈর্ঘ্যের সঙ্গে অসামঞ্জস্যপূর্ণ। এছাড়া এর খরচ ও অনেক বেশি এবং এটা থেকে বেগুনি রশ্মি ও তাপ উৎপন্ন হয় যা শিশুর জন্য ক্ষতিকর। পরবর্তী এটি শিশুর শরীরে পানি স্বল্পতার সৃষ্টি করে।

এই পরিস্থিতি বিবেচনা করে আমাদের ডিভাইসটিতে উজ্জ্বল নীল রঙের এলইডি ব্যবহার করা হয়েছে। এতে বিদ্যুত খরচ হবে খুবই কম এবং তাপ উতপন্ন হবে না। আর ৪৫০ ন্যানোমিটারের নীল আলো ব্যবহারের কারণে এটি ফটোথেরাপির আদর্শ মানের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ।

ডিভাইসটির কাঠামো কাঠের তৈরি হওয়ায় এর দামও যেমন কম পাশাপাশি এটি পরিবেশ বান্ধব। আমাদের দেশের ক্লিনিক ও হাসপাতালে ব্যবহৃত ডিভাইসগুলো বিদেশ থেকে আমদানি করায় এর ব্যয় অনেক বেশি পড়ে যায়। তার চেয়ে এ ডিভাইস তরঙ্গ দৈর্ঘ্যর বিচারে অনেক বেশি কার্যকরী এবং দামও অনেক কম। এখন তারা এই ডিভাইসটিকে দ্ররিদ্র মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে বাজারজাত করার পরিকল্পনা করছেন।

Share.



1 Comment

Open