আইসিটি খাতের ভ্যাট-ট্যাক্স মওকুফের অনুরোধ পলকের

তথ্য প্রযুক্তি

আগামী অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে আইসিটি খাতে যেসব ভ্যাট-ট্যাক্স নির্ধারণ করা হয়েছে অর্থমন্ত্রীর কাছে তা মওকুফের অনুরোধ করেছেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। এছাড়াও ই-কমার্স খাতে ২০২৪ সাল পর্যন্ত যে কর অব্যাহতি দেওয়া হয়েছিল সেটি পুনর্বহালেরও অনুরোধ করেন তিনি।

সোমবার জাতীয় সংসদে ২০১৬-১৭ অর্থবছরের বাজেটের উপর আলোচনায় অংশ নিয়ে অর্থমন্ত্রীর কাছে এসব অনুরোধ করেন পলক।

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ২০২১ সাল নাগাদ দেশে শুধু তথ্যপ্রযুক্তি খাতে ২০ লাখ কর্মসংস্থান তৈরি করা হবে। দেশে এই সময়ের মধ্যে আইসিটি খাত থেকে ৫০০ কোটি ডলার আয় করা সম্ভব হবে। যা দেশের জিডিপিতে অবদান রাখতে পারবে পাঁচ শতাংশ। তিনি বলেন, গত সাড়ে সাত বছরে আইসিটি খাতে গড়ে প্রতিবছর নয় লাখ তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থানের সুযোগ হয়েছে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদের নেতৃত্বে চারটি মূল লক্ষ্য নিয়ে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। আমরা প্রযুক্তির সেবা সব মানুষের দ্বারে পৌছে দিতে চাই। এজন্য এই খাতে দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তোলার কাজ করা হচ্ছে।

পলক বলেন, ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার, বিজনেস প্রসেস আউটসোর্সিং সেন্টার, সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট, মোবাইল গেইমিং, মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন থেকে শুরু করে আমাদের আইটি সেক্টর, ফ্রিল্যান্সিং সব মিলিয়ে এ মুহূর্তে আমরা প্রায় ৪০০ মিলিয়ন ডলার আয় করছি।

সংসদে ওই আলোচনায় অংশ নিয়ে প্রতিমন্ত্রী জানান, দেশে ২৫ হাজার সরকারি অফিসে ইন্টারনেটের হাইস্পিড ফাইবার অপটিক্যাল ক্যাবল স্থাপন করা হয়েছে। প্রাথমিক থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত এ মুহূর্তে চার কোটি শিক্ষার্থীকে প্রযুক্তি শিক্ষা দিতে আইসিটি বিষয়কে ষষ্ঠ শ্রেণি থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এছাড়াও ২০ হাজার বুদিয়াদি প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। আর এর মধ্য দিয়ে শুধু ফ্রিল্যান্সিং থেকে প্রায় ৭০ মিলিয়ন ডলার প্রতিবছর আয় করা সম্ভব হচ্ছে।

সূত্র :টেক শহর