আপনার একটু সাহায্য বাঁচাতে পারে শিক্ষার্থী ওয়াহেদ বাবুকে

দুর্গাপুর রাজশাহী

ইমাম মেহেদী মিশুক,পাবনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ থেকেঃ

আবদুল ওয়াহেদ বাবু; জন্ম ১৬ আগষ্ট ১৯৯৪ ,২২ বছরের মেধাবী এই ছাত্র, ডিপার্টমেন্ট এর ফার্স্ট বয়; যার এখন ছুটে বেড়ানোর কথা ছিল কলেজের ফাইল, শীট-বই হাতে লাইব্রেরী টু ডিপার্টমেন্ট, হওয়ার কথা ছিলো বন্ধুদের আড্ডার শিরোমনি, গরীব বাবার স্বপ্ন, যার কাধে হাত রেখে স্বপ্ন দেখার চেষ্টা করেছিল বাবা, মা এর সকল ভরসা, যাকে দেখে মা সকল কষ্টেও মুখে এক চিলতে হাসি ফুটে উঠত।

রাজশাহীর দূর্গাপুর উপজেলার সূর্যভাগ গ্রামের সন্তান বাবুর সবকিছু ঠিকঠাক মতই চলছিলো কিন্তু হঠাত এক মরণ রোগ এসে দানা বাঁধলো বাবুর শরীরে তাতে লণ্ডভণ্ড হয়ে গেলো স্বপ্ন । ছোট বেলা থেকেই তার সমস্যা ছিল। মাত্র ৫ বছর বয়সে তার কিডনজনীত সমস্যার জন্য দুটো কিডনি নষ্ট হয়ে যায় তারপর ঢাকা পিজি হাসপাতালে বৃক্কনালীর অপারেশনের পর ভালই যাচ্ছিল। কিন্তু হঠাৎ করে আবার অসুস্থ হওয়ায় পুনরায় টেষ্ট করে জানা যায় যে তার কিডনি ৯০% অকেজো। কিছুদিন অ্যাপোলো হাসপাতাল, ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসার পর অর্থাভাবে তার চিকিৎসা এখন বন্ধপ্রায়।

ছোটবেলা থেকেই মেধাবী ছাত্র ছিল এই বাবু। বাবা-মায়ের স্বপ্ন পূরনে অদম্য পরিশ্রম করা বাবু ২০১৪-১৫ সেশনে পাবনা টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে ভর্তি হয় স্বপ্ন পুরোণের আশায়। এখন সে যুদ্ধ করছে হাসপাতালের বেডে। তার কিডনী ৯০% ক্ষতিগ্রস্ত। এখন প্রতি সপ্তাহে তার ডায়ালাইসিস করা লাগছে যা অনেক ব্যয়সাপেক্ষ ব্যাপার এবং অতিসত্বর তার কিডনী ট্রান্সপ্লান্টের প্রয়োজন ,কিন্তু এই ট্রান্সপ্লান্ট সহ সংকীর্ণ বৃক্কনালীর অপারেশনের জন্য প্রয়োজন প্রায় প্রায় ২৫ লক্ষ টাকা। যা তার বাবা-মা কিংবা পরিবারের পক্ষে জোগাড় করা কোনোভাবেই সম্ভব নয়।

ইতিমধ্যে মাদ্রাসার শিক্ষক বাবার যা কিছু সম্পদ ছিল সব দিয়ে ছেলেকে চিকিৎসা করিয়েছেন, এখন তার সামনে নিজের ছেলেকে হাসপাতালে বিনা চিকিৎসায় শয্যাশায়ী দেখা ছাড়া আর কিছুই করার ক্ষমতা নেই ।

আচ্ছা আমরা এতোগুলা মানুষ ,আমরা কি পারি না বাবুর জন্য কিছু করতে? আমরা যদি অল্প কিছু করেও সাহায্য করি তবে বাবু ফিরে আসবে আমাদের মাঝে ইনশাআল্লাহ্। আমরা বাবুর বন্ধু হয়ে আপনার/আপনাদের কাছে অনুরোধ করছি আমাদের বাবু কে ফিরিয়ে আনার জন্য সাহায্য করুন, আপনার ক্ষুদ্র সাহায্য ফিরিয়ে দিতে পারে আমাদের বাবুকে, পারে তার মায়ের শূন্য হৃদয় ভরিয়ে দিতে পারে । আমি যখন এই কথাগুলা লিখছি তখন এটা ভেবে চোখে পানি চলে আসছে যে বাবু সবার বিপদে-আপদে নিজেকে উজাড় করে দিয়েছে সেই বাবু আজ হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে প্রতি মূহুর্তে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে ।

আপনার ক্ষুদ্র দানে ফিরে আসতে পারে আমাদের বাবু, আমরা বাবুর বন্ধু আপনার কাছে হাত জোড় করে বলছি বাবুর জন্য কিছু একটা করুন।

বাবুর মেডিকেল রিপোর্ট ও অন্যান্য হাসপাতালের কাগজ সমূহঃ https://drive.google.com/file/d/0BxtvjLG8-nR5SnNuTVlRRTJ0OXc/view?usp=drivesdk

বাবুর জন্য সাহায্য পাঠাবার ঠিকানাঃ
MD. Sameul Alim
ডাচ্-বাংলা ব্যাংক হিসাব নংঃ ১৬১১৫১৬৮৫১৫
পাবনা শাখা ।
বিকাশ করুনঃ ০১৭৪৭৩৮৪৫১৫
ডাচ বাংলা মোবাইল ব্যাংকিংঃ ০১৭৫০৪০০৪১৬৯
রকেটঃ ০১৭৪৮৪২৬০৬৯৪
সার্বিক তথ্য জানার জন্য যোগাযোগ করুনঃ ০১৭৪৭৩৮৪৫১৫, ০১৭০৪৭৫৬৯৬৭
০১৭৫৭৪২৮০০৪