আবাসিক হোটেল থেকে খদ্দেরসহ পতিতা আটক

অপরাধ

টেকনাফে ভাড়াটিয়া হোটেল মালিক, খদ্দের ও পতিতাসহ ১১জনকে আটক করেছে পুলিশ। রবিবার দুপুরে পৌরসভার আবাসিক গ্রীন গার্ডেনে হোটেলে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হচ্ছে- ইসলামাবাদ এলাকার মৃত কালা মিয়ার ছেলে মমতাজ মিয়া (৫৫), কেকে পাড়ার নুরুর কবিরের ছেলে ফায়েজ (২৪), মহেশখালী উপজেলার গোরকঘাটা এলাকার মো. আলমের ছেলে মো. সৈয়দ (২৭), টেকনাফের চৌধুরীর পাড়ার আবদুল করিমের ছেলে মো. ফারুক আহমদ (২৭), জাহালিয়া পাড়ার মো. ইসমাইলের ছেলে আবুল হাসেম (৩২), হ্নীলা ইউনিয়নের লেদার উত্তর পাড়ার নুর মোহাম্মদের কন্যা ফাতেমা (২০), জালিয়া পাড়ার হাবিবুর রহমানের কন্যা জোবেদা (২২), লেদার মো. হাছনের মেয়ে রুশন আক্তার (১৫), টেকনাফ কেকে পাড়ার খোরশেদ আলমের স্ত্রী শামশুন্নাহার (৩৫), দক্ষিণ লেদার মুন্নার স্ত্রী মায়মুনা আক্তার (২০) ও মহেশখালী উপজেলার গোরকঘাটার হোসেনের স্ত্রী মুন্নী (২২)।

টেকনাফ মডেল থানার ওসি আতাউর রহমান খোন্দকার জানান, হোটেলটির মালিক সৌদি প্রবাসী মো. ইলিয়াছ থেকে ভাড়া নিয়ে মমতাজ মিয়া দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন এলাকা থেকে মহিলাদের সংগ্রহ করে প্রশাসনকে ফাঁকি দিয়ে অসামাজিক কার্যকলাপ চালিয়ে আসছিল। এমন অভিযোগ পেয়ে টেকনাফ মডেল থানা পুলিশ দীর্ঘদিন পর হলেও অভিযান চালিয়ে ওই ভাড়াটিয়া মালিক মমতাজ মিয়াসহ ১১ জনকে আটক করতে সক্ষম হয়। এ ঘটনায় হোটেল ম্যানেজার রাজা মিয়া পালিয়ে যাওয়ায় তাকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।

আটককৃতদের বিরুদ্ধে মামলা করে আদালতে প্রেরণ করা হবে বলেও জানান ওসি।