ঈদের সাজ এবেলা-ওবেলা

জীবনযাপন

পুরো আনন্দ ঘিরে রয়েছে আপনার উপস্থিতি। তাই হাজার কাজের ভিড়েও নিজেকে রাখতে হবে সবচেয়ে সুন্দর আর আকষর্ণীয় রাখবেন সেই পথ বাতলে দিয়েছেন ওমেন্স ওয়ার্ল্ডের পরিচালক বিউটি এক্সপার্ট ফারনাজ আলম।

সকালে মুখ ধুয়ে এক টুকরো বরফ ঘষে নিন। ময়েশ্চারাইজার লাগিয়ে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে মুখে ও গলায় ভালোভাবে সানব্লক লাগিয়ে নিন। এরপর ভেজা পাফের সাহায্যে মুখে কমপ্যাক্ট পাউডার লাগান। ফিক্সিং স্প্রে দিয়ে সারা মুখে স্প্রে করুন। দুপুর পর্যন্ত নিশ্চিন্তে পার করার মতো বেইজ মেকআপ শেষ। চোখে একটু কাজল কিংবা লাইনারের রেখা দিয়েই সাজ শেষ করুন। পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে উজ্জ্বল রং-এর লিপস্টিক লাগান। শাড়ি বা সালোয়ার-কামিজ—পোশাক যা-ই হোক, চুলগুলো টেনে আঁটসাঁট করে বেঁধে নিন কাজের সময় সুবিধা হবে।

আসল সাজের সময় তো সন্ধ্যায়। সারাদিন অতিথি আপ্যায়ন, রান্না আর ঘরের কাজ করতেই চলে যায়, সন্ধ্যাটা ফ্রি রাখুন, প্রিয়জনদের সঙ্গে বাইরে যান।
এই সময়ে বের হওয়ার আগে নিজেকে সুন্দর করে সাজিয়ে নিন। কীভাবে?
প্রথমে ব্রাস করুন, গোসল করুন। সারাদিনের ক্লান্তি দূর হয়ে যাবে।
এবার এক মগ চা বা কফি খেয়ে ঝরঝরে হয়ে সাজতে বসুন।

বাইরে বের হচ্ছেন বৃষ্টি হতে পারে, তাই ওয়াটার বেজড্ ফাউন্ডেশন মুখে, গলায় ও ঘাড়ে লাগিয়ে ভালো করে ব্লেন্ড করে নিন। এর ওপরে কম্প্যাক্ট পাউডার দিন। পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে চোখে গাঢ় রং-এর শ্যাডো লাগিয়ে নিন। চোখের নিচে কাজল দিন। আইলাইনার কিংবা কাজল ইচ্ছামতো লাগাতে পারেন। ঘন মাশকারার প্রলেপে শেষ করুন চোখের সাজ। হাইলাইটার বা শিমার পাউডারের সীমিত ব্যবহার হতেই পারে। ত্বকের সঙ্গে মানিয়ে বেছে নিন হাইলাইটার। ঠোঁটে দিন গাঢ় রং-এর লিপস্টিক।

শাড়ি পরলে মানানসই টিপ লাগিয়ে নিতে পারেন। চুল স্ট্রেইট করে নিচের দিকটা কার্ল করে রাখতে পারেন।

পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে গয়না পরুন। গয়নার বিষয়ে একটি বিষয় লক্ষ্য রাখুন, যদি বড় কানের দুল পরেন, তবে গলায় লম্বা চেন টাইপ কিছু পরুন।

এবার পারফিউম মেখে, ব্যাগে ঘরের চাবি, মোবাইল ফোন নিয়ে সবার সঙ্গে বাইরে যান।

খবরঃ বাংলানিউজ

1 thought on “ঈদের সাজ এবেলা-ওবেলা

Comments are closed.