উচ্ছ্বাস আর আনন্দের বাঁধ ভেঙেছে রাজশাহী বাসন্তি উৎসবে

রাজশাহী

ফুলেল বসন্ত, মধুময় বসন্ত, যৌবনের উদ্যামতা বয়ে আনার বসন্ত আর আনন্দ, উচ্ছ্বাস ও উদ্বেলতায় মন-প্রাণ কেড়ে নেওয়ার আজ প্রথম দিন।

তাই শনিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) ফাল্গুনের প্রথম দিনে বর্ণাঢ্য আয়োজনে রাজশাহীতে অনুষ্ঠিত হলো বসন্ত উৎসব।

বিভিন্ন ধর্ম সম্প্রদায়ের মানুষ বিভিন্নভাবে প্রাণ উজাড় করে ঋতুরাজ বসন্তকে বরণ করেছে। শোভাযাত্রা, কবিতাপাঠ, নাচ আর গানের ছন্দে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে পালিত হয়েছে বসন্তের প্রথম দিনের ফাল্গুনী উৎসব। সব আয়োজনে যেন স্বপ্নজয়ী তারুণ্যের ঢেউ লেগেছিল।

Rajshahi_boshonto_boron_picture_4_771236391
বরাবরের মতো বসন্তের মূল আকর্ষণ ছিল রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে, বিশেষত চারুকলায়।
এবারের বসন্তে প্রতি বছরের মতো এবার সেখানে ছিল প্রাণের স্পন্দন। শুকনো পাতার মড় মড় ধ্বনি ভেঙে উৎসাহ উদ্দীপনায় বন্ধু আর সহপাঠীদের নিয়ে সবাই মেতে উঠেছিল বাসন্তি উৎসবে।

এছাড়া পয়লা ফাল্গুন উপলক্ষে শনিবার বেলা ১১টার দিকে রাজশাহী কলেজ থেকে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ হবিবুর রহমান শোভাযাত্রায় নেতৃত্ব দেন।

এতে কলেজের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা অংশ নেন। বাদ্য-বাজনার ছন্দে ছাত্রীদের হলুদ শাড়ি আর ছাত্রদের হলদে পাঞ্জাবি বরণে পুরো শোভাযাত্রা জানান দেয় আজ বসন্তের দিন।

Rajshahi_boshonto_boron_picture_3_113093336
শোভাযাত্রাটি বিভিন্ন প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে কলেজ চত্বরে গিয়ে শেষ হয়।দিনভর সেখানে চলে নানা অনুষ্ঠান।

এদিকে, দুপুর গড়িয়ে বিকেল হতেই মহানগরীর বিভিন্ন বিনোদন স্পটে ঢল নামে তরুণ-তরণীসহ বিভিন্ন বয়সী মানুষের। মেয়েদের পরণে হলুদ রঙের শাড়ি, খোঁপায় গাঁদা ফুল, আবার কারও কারও খোঁপায় রঙিন ফুলের রিং, কারও খোঁপায় আবার দেখা গেছে ফুলের গাজরা।

ছেলেদের পরণে হলুদ অথবা সফেদ রঙের পাঞ্জাবি। এমনি বাহিরে রঙের পোশাক পরে আজ বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে ঘুরতে দেখা গেছে নগর যুবাদের।

ফাঁকে ফাঁকে মোবাইলের ক্ষুদ্র ক্যামেরায় উঠেছে বড় বড় সেলফি। তাদের পাশে ছিল মধ্যবয়সী নর-নারী ও কোমল শিশুর দল।

সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত রাজশাহীর শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান উদ্যান ও চিড়িয়াখানা, জিয়া পার্ক, বড়কুঠি পদ্মাপাড়ে, টি-বাঁধ, ভদ্রার শহীদ মনসুর রহমান পার্ক, পদ্মা গার্ডেনসহ অন্যান্য বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে ছিল উপচে পড়া ভিড়।

কেউ বন্ধু-বান্ধবীদের নিয়ে, কেউ প্রিয়তম, আবার কাউকে পরিবার পরিজন নিয়ে ঘুরতে দেখা গেছে।

মহানগীরতে আজ শোভাযাত্রা, আবীর ও ফুলের প্রীতিবন্ধনীর পাশাপাশি নাচ ও গানের আয়োজন চলবে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত।

এদিকে নগরীর ফুদকিপাড়া উন্মুক্ত মঞ্চসহ বিভিন্ন স্থানে নেওয়া হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা। পুলিশের পাশাপাশি টহল দিচ্ছেন র‌্যাব সদস্যরা।

বাংলানিউজ-http://www.banglanews24.com/fullnews/bn/465504.html