এইচএসসি পরীক্ষায় প্রথম পত্রের পরীক্ষায় দ্বিতীয় পত্রের প্রশ্ন : তোলপাড়

ক্যাম্পাসের খবর জাতীয়

image

নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার একটি পরীক্ষা কেন্দ্রে এইচ এস সি এর পৌরনীতি প্রথম পত্রের পরীক্ষায় দ্বিতীয় পত্রের প্রশ্নপত্র বিতরণের ঘটনা ঘটেছে।

বৃহ:স্পতিবার দুপুরে চাপরাশিরহাট ইসমাইল ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। এ নিয়ে ব্যাপক তোলপাড় চলছে।

জানা গেছে, সকাল ১০টা থেকে পৌরনীতি ১ম পত্রের পরীক্ষা শুরু হয়। পরীক্ষায় ২’শ পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১’শ ৯৭ জন পরীক্ষার্থী অংশ গ্রহণ করেন। দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে পৌরনীতির সৃজনশীল ৬০ নাম্বারের পরীক্ষা শেষ হয়। এরপর উত্তরপত্র সংগ্রহ করা শেষে ওই বিষয়ের ৪০ নাম্বারের নৈর্ব্যক্তিক পরীক্ষা শুরু হয়। এসময় কেন্দ্রের ১ থেকে ৬নং হলে ক, খ, গ ও ঘ সেটে পরীক্ষার্থীদের মাঝে নৈব্যত্তিক প্রশ্ন বিতরণ করা হয়। ওই সময় বিতরণকৃত গ ও ঘ দু’সেটের প্রশ্ন ছিল পৌরনীতি দ্বিতীয় পত্রের। বিতরণের ২০ মিনিট পর কয়েকজন পরীক্ষার্থী দ্বিতীয় পত্রের বিষয়টি হল কর্তৃপক্ষকে অবগত করলে তারা দ্রুত ওই প্রশ্নপত্রটি পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে নেওয়ার চেষ্টা করা হয়। এ নিয়ে পরীক্ষার্থীরা অনিহা প্রকাশ করলে তাদের সাথে হল পরিদর্শকদের সাথে উত্তেজনা দেখা দেয়। এসময় কয়েকজন শিক্ষার্থী প্রশ্নপত্র লুকিয়ে ফেলেছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।
চাপরাশিরহাট ইসমাইল ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অধ্যক্ষ আবুল বাসার’এর মুঠো ফোনে যোগাযোগ করা হলে অন্য একজন রিসিভ করে জানান, ‘স্যার মিটিংয়ে আছে, কথা বলতে পারবেন না।
’তবে, পরীক্ষা কেন্দ্র পরিচালনা কমিটির সদস্য হারান চন্দ্রা ভৌমিক বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, ভুলবশত দ্বিতীয় পত্রের নৈব্যত্তিক প্রশ্ন পরীক্ষার্থীদের মাঝে বিতরণ করা হয়েছে। বিষয়টি জানার পর তাৎক্ষণিক ভাবে সকল প্রশ্নপত্র পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে সংগ্রহ করে নেয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে কবিরহাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও পরীক্ষার তত্ত্বাবধায়ক মো. সামছুল হকের সাথে আলাপ করলে তিনি বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, বিষয়টি কুমিল্লা বোর্ড কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। এ বিষয়ে উনারা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। তবে দায়িত্ব অবহেলার কারণে কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অধ্যক্ষ আবুল বাসারকে কারণ দর্শনোর নোটিশ দিয়ে আগামী ৭দিনের মধ্যে লিখিত প্রতিবেদন জমা দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলেও জানান ইউএনও।

Leave a Reply

Your email address will not be published.