ওদের কী হবে!

জাতীয়

ষোল বছরের কিশোর পলাশ বাবার সঙ্গে কল্যাণপুরে অপেক্ষা করছে সকাল ৭টা থেকে। সকাল ৮টার বাস ৯টাতেও আসেনি কাউন্টারে। কাউন্টার থেকে কোনো নিশ্চয়তাও দিচ্ছে না কখন আসবে।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টায় শহীদুল ইসলামের সঙ্গে নওগাঁর উদ্দেশে রওনা দেওয়ার জন্য বাবার সঙ্গে অপেক্ষা তার।

ঘরে ফেরার এ অনিশ্চয়তা জানাতে সেল ফোনে যোগাযোগ করে আগের দিন বুধবার দুপুরে নওগাঁ রওনা হওয়া বন্ধু রায়হানের সঙ্গে।

তার কষ্টের কথা জানাতেই সেল ফোনে এ যোগাযোগ। অপর প্রান্ত (টাঙ্গাইল) থেকে রায়হান জানায়- ২০ ঘণ্টায় সে টাঙ্গাইল পৌঁছেছে। কখন নওগাঁ পৌঁছুবে জানে না।

সকাল ৬ টা থেকে কল্যাণপুর, গাবতলী ঘুরে বিভিন্ন বাস কাউন্টারে যোগাযোগ করে জানা গেল, বুধবার উত্তর ও দক্ষিণাঞ্চলে ছেড়ে যাওয়া বাসগুলোর মধ্যে দু-একটা করে কাউন্টারে আসছে। রাস্তায় জটে পড়ে আটকে রয়েছে ফেরত বাসগুলো।

কমপক্ষে ছয়ঘণ্টা লেট করেছে বেশিরভাগ বাস। আর বুধবার রাতে ছেড়ে যাওয়া বাসগুলো কখন ফিরবে তাও বলতে পারছেন না কাউন্টারের কর্মকর্তারা।

সকাল ৯টা পর্যন্ত প্রায় সব কাউন্টারই বাসশূন্য। তবে যাত্রীতে ঠাসা কাউন্টারের আঙ্গিনা। রাস্তা অবধি ছড়িয়ে আছে যাত্রীর ভীড়।

ঈদে তখনও যাত্রীরা বাসের টিকিটের জন্য ছুটছেন বিভিন্ন কাউন্টারে। কল্যাণপুর শ্যামলী পরিবহনের মূল কাউন্টারে পা রাখার জায়গা না থাকলে টিকেটের জন্য ভীড় ঠেলেই লোকজন ছুটছেন হন্যে হয়ে।

পলাশ বাবার সঙ্গে ফিস ফিস করে জানতে চায় যারা দুপুরে রওনা হবে, তারা ঈদের আগে পৌঁছুবে কীভাবে। পলাশের বাবা শহীদুল ইসলাম ছেলেকে জানান, জ্যাম না ছাড়লে বাড়ি পৌঁছুতে পারবেন না ঈদের আগে। ছেলের প্রশ্ন ওদের কী হবে! ঈদ করবে কোথায়?

এ প্রশ্ন শুধু পলাশের নয়। কল্যাণপুরের বাসা কাউন্টারের পাশের চা দোকানি আসিফেরও একই প্রশ্ন- ওদের কী হবে! ঈদ কি রাস্তায় করবে?

সিডিউলের নির্ধারিত বাসগুলো ফিরে না এলে অতিরিক্ত বাস দেওয়া হবে কিনা জানতে চাইলে শ্যামলী পরিবহনের কর্মকর্তা হাফিজ বলেন, আমাদের সে ক্ষমতা নেই। আমরা ঈদের সময় সিডিউল করি অতিরিক্ত বাস দিয়ে। সিডিউলের বাসই পাচ্ছি না।

যশোর থেকে রওনা হওয়া আরএম-২ এক্সক্লুসিভ পরিবহনের চালক বাবু বলেন, কাল (বুধবার) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় রওনা হয়েছি যশোর থেকে। এসে পৌছুঁলাম কয়েক মিনিট আগে পৌনে ৯টায়। কালামপুর থেকে কল্যাণপুর এক ঘণ্টার পথ এসেছি ৬ ঘণ্টায়।

তিনি আরো জানান, কল্যাণপুর থেকে বুধবার বিকেল সাড়ে ৩টায় ছেড়ে আর এম-২ পরিহবনের অন্য একটি বাসে কালামপুরে আটকে রয়েছেন রাত পৌনে ২টা পর্যন্ত।