কর্মীকে বটি দিয়ে কোপালেন ছাত্রলীগ নেত্রী

বগুড়া রাজশাহী বিভাগ

বগুড়া সরকারি মুজিবুর রহমান মহিলা কলেজে ছাত্রলীগ নেত্রী ও তার সহযোগীরা মোত্তাকিয়া আকতার নামে ছাত্রলীগের এক কর্মীকে বটি দিয়ে কুপিয়ে জখম করেছেন।

বৃহস্পতিবার (১৯ নভেম্বর) রাত ৮টার দিকে বগুড়া সরকারি মুজিবুর রহমান মহিলা কলেজ হোস্টেলে এ ঘটনা ঘটে।

পরে আহত কর্মীকে উদ্ধার করে বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

কলেজ ছাত্রলীগের সভানেত্রী ও সাধারণ সম্পাদিকার নেতৃত্বে দুই গ্রুপ একে অপরকে সামাজিকভাবে হেয় করার জের ধরে এই ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে।

রাত পৌনে ১১টার দিকে কলেজের হোস্টেল সুপার শাহিন সাখাওয়াতের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বাংলানিউজকে জানান, ছাত্রীদের দুই পক্ষের মধ্যে সামান্য কথা কাটাকাটি হয়েছে।

আহত মোক্তাকিয়া আকতার সম্পর্কে জানতে চাইলে কৌশলে তিনি এড়িয়ে গিয়ে বলেন, বিষয়টি নিয়ে জরুরি মিটিং চলছে। তাই মিটিং শেষে বিস্তারিত জানানো যাবে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কলেজের কয়েক ছাত্রী জানান, দীর্ঘদিন ধরে বগুড়া সরকারি মুজিবুর রহমান মহিলা কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভানেত্রী আঞ্জুমান আকতার আয়না ও সাধারণ সম্পাদিকা রত্মা সরকারের নেতৃত্বে দুই গ্রুপের মধ্যে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলছে। বেশ কিছুদিন ধরে এক গ্রুপ আরেক গ্রুপকে নানাভাবে হেয় করার চেষ্টা করছিল।

এরই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর থেকে দুই গ্রুপের দ্বন্দ্ব চরম আকার ধারণ করে। একপর্যায়ে রাত ৮টার দিকে আঞ্জুমান আকতার আয়না গ্রুপের কর্মী দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী মোত্তাকিয়া আকতারের ওপর রত্মা সরকারের নেতৃত্বে তার সহযোগীরা হামলা চালান।

এ সময় তারা মোত্তাকিয়া আকতারকে ব্যাপক মারধর ও একপর্যায়ে তার মাথা ও পিঠে বটি দিয়ে কুপিয়ে আঘাত করেন। পরে তাকে উদ্ধার করে বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সরকারি মুজিবুর রহমান মহিলা কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভানেত্রী আঞ্জুমান আকতার আয়না জানান, সাধারণ সম্পাদিকা রত্মা সরকার ও তার সহযোগীরা রাজনৈতিক পরিচয়ে বিভিন্ন অসামাজিক ও অনৈতিক কাজে লিপ্ত। তাদের এসব কাজে যুক্ত হতে দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রী মোত্তাকিয়া আকতারকে নানাভাবে চাপ প্রয়োগ করে আসছিলেন। কিন্তু মোত্তাকিয়া তাতে রাজি না হওয়ায় তাকে কুপিয়ে ও মারধরে জখম করা হয়।

তবে চেষ্টা করেও কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদিকা রত্মা সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি।

বাংলানিউজ