ক্যাম্পাসে মোমবাতি জ্বালিয়ে বিচার দাবি

ক্যাম্পাসের খবর রাজশাহী রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের প্রফেসর ড. এএফএম রেজাউল করিম সিদ্দিকী হত্যার প্রতিবাদ ও বিচার দাবিতে টানা সপ্তম দিনের মতো কর্মসূচি পালন করেছেন শিক্ষার্থীরা।

শুক্রবার (২৯ এপ্রিল) সন্ধ্যায় শহীদুল্লাহ কলা ভবনে যাওয়ার পথে মোমবাতি জ্বালানোর মধ্যে দিয়ে বিচারের দাবি জানানো হয়।

বিকেল শিক্ষার্থীরা শহীদুল্লাহ কলাভবনের সামনের আমতলায় ‘মুকুল প্রতিবাদ ও সংহতি মঞ্চতে জড়ো হয়ে সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে মোমবাতি হাতে প্যারিস রোড ও শহীদুল্লাহ কলাভবনের সংযোগস্থলের রাস্তা থেকে ভবনের ফটক পর্যন্ত সারিবদ্ধ হয়ে দাঁড়িয়ে এ কর্মসূচি পালন করে।
এসময় প্রিয় শিক্ষকের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়ে দুই মিনিট নিরবতা পালন করেন শিক্ষার্থীরা। পরে আধা ঘণ্টাব্যাপী চলা এ কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী সোহান রেজা।

তিনি বলেন, দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠে একের পর এক এ ধরণের নৃশংস আঘাত আমাদের ক্ষত-বিক্ষত করে দিয়েছে। এভাবে আমরা আর কোনো অভিভাবক হারাতে চাইনা। আর কোনো পিতাকে হারাতে চাইনা। শ্রদ্ধেয় শিক্ষকদেকে এভাবে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে থাকতে দেখতে চাইনা। এজন্য প্রতিটি হত্যাকাণ্ডের বিচার এবং ঘাতকদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।

এছাড়া ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী তমাশ্রী দাস বলেন, স্যারের হত্যার প্রতিবাদ ও বিচার দাবিতে আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছি। শুক্রবার ছুটির দিন ছিল, তারপরও যাতে কর্মসূচি বন্ধ না থাকে সেজন্য মোমবাতি জ্বালিয়ে প্রতিবাদ জানাচ্ছি, বিচার চাচ্ছি। শনিবার থেকে বিক্ষোভ, মৌন মিছিলসহ অন্যান্য কর্মসূচি চলবে।

মোমবাতি প্রজ্জ্বলন কর্মসূচি থেকে শিক্ষার্থীরা শনিবার (এপ্রিল ৩০) ক্যাম্পাসে দিনভর নানা কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। এর মধ্যে রয়েছে সকাল ১০টায় ‘মুকুল প্রতিবাদ ও সংহতি মঞ্চ’ থেকে মৌন মিছিল, বেলা ১১টায় শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন ও সমাবেশে সংহতি প্রকাশ, দুপুর ১২টায় সাবাস বাংলাদেশ ভাস্কর্যে কালো কাপড় বাধা এবং সাড়ে ১২টা থেকে সংহতি মঞ্চে ছাত্র সমাবেশ।

গত ২৩ এপ্রিল সকাল সাড়ে ৭টার দিকে শালবাগান এলাকায় নিজ বাসা থেকে একটু দূরে ড. রেজাউল করিম সিদ্দিকীকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা।

খবরঃ বাংলানিউজ