খাবার ঐচ্ছিক হওয়ায় ভিড় বেড়েছে বনলতায়

রাজশাহী

বাধ্যতামূলক ১৫০ টাকার খাবার মূল্য ছাড়াই টিকিট মিলছে বনলতা এক্সপ্রেসের। পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী, শনিবার থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর করেছে রেল কর্তৃপক্ষ।

খাবার ঐচ্ছিক করা হলেও রাজশাহী-ঢাকা রুটের একমাত্র বিরতিহীন এই ট্রেনে থাকছে দুটি খাবার বগি। ভ্রমণকারীরা চাইলেই ইচ্ছামত খাবার কিনে খেতে পারবেন।

পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের প্রধান বাণিজ্যিক কর্মকর্তা এএমএম শাহ নেওয়াজ জানান, খাবার মূল্য বাতিল হবার পর বনলতা এক্সপ্রেসের শোভন চেয়ার ৩৭৫ টাকা এবং এসি (স্নিগ্ধা) চেয়ারের টিকিটের মূল্য পড়ছে ৭২৫ টাকা। ট্রেনে খাবার রাখা হয়েছে ঐচ্ছিক।

রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বিক্রির জন্য প্রতিদিন বনলতা এক্সপ্রেসের শোভন চেয়ারের ৭৭৯টি এবং এসি (স্নিগ্ধা) চেয়ারের ১৬০টি টিকিট ছাড়া হয়েছে। খাবার ঐচ্ছিক হওয়ায় বনলতায় ভিড় বেড়েছে ভ্রমণকারীদের।

গত ২৫ এপ্রিল গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর দুইদিন পর ২৭ এপ্রিল বাণিজ্যিক যাত্রা শুরু করে বনলতা।

শুরু থেকে বনলতায় শোভন চেয়ার ৫২৫ টাকা এবং এসি (স্নিগ্ধা) চেয়ারের টিকিটের মূল্য ছিল ৮৭৫ টাকা করে। ১৫০ টাকা খাবারের মূল্য ধরে এটি নির্ধারণ করা হয়েছিল। কিন্তু বাড়তি খাবার মূল্য নিয়ে সমালোচনা শুরু হলে এটি বাতিলের দাবি করেন রাজশাহী সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম ও রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা। এরই প্রেক্ষিতে খাবার মূল্য বাতিলের সিদ্ধান্ত নেয় রেলওয়ে।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ জাগোনিউজ২৪