‘গুপ্তধন’ নিয়ে নিরুদ্দেশ রাজশাহীর ৫ নির্মাণশ্রমিক!

বাগমারা রাজশাহী

শৌচাগারের ট্যাঙ্কের খননকাজের সময় পাওয়া ‘গুপ্তধন’ নিয়ে রাজশাহীর বাগমারার পাঁচ নির্মাণশ্রমিক পালিয়ে গেছেন। অনেক খোঁজাখুঁঁজি করেও তাদের হদিস পাওয়া যাচ্ছে না।

নিরুদ্দেশ পাঁচ শ্রমিকের মধ্যে তিনজনের নাম পরিচয় নিশ্চিত করেছে পুলিশ। তারা হলেন- উপজেলার ভবানীগঞ্জ পৌরসভার চাঁনপাড়া মহল্লার ইবর উদ্দিনের ছেলে আলতাফ হোসেন (৩২), একই এলাকার নির্মাণশ্রমিক ওসমান (৩৫) ও উপজেলার দেউলিয়া গ্রামের শ্রমিক রহিম উদ্দিন (৪৫)। তাদের খোঁজে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে বাগমারা থানা পুলিশ।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, বাগমারার ভবানীগঞ্জ পৌরসভার চাঁনপাড়া মহল্লার মিষ্টি ব্যবসায়ী আলমগীর হোসেন সম্প্রতি তার পুরাতন টিনসেড বাড়িটি ভেঙে পাঁচতলা ভবন নির্মাণকাজ শুরু করেন। এরই মধ্যে ভবন নির্মাণকাজ এগিয়েছে কিছু দূর। সর্বশেষ গত ১১ ফেব্রুয়ারি নির্মাণাধীন ভবন সংলগ্ন স্থানে শৌচাগারের ট্যাঙ্ক নির্মাণের জন্য খননকাজ শুরু হয়। খননকাজে অংশ নেন আলতাফ হোসেন, ওসমান ও রহিম উদ্দিনসহ পাঁচ শ্রমিক।

ওই দিন এলাকার একটি ইসলামী জালসায় দোকান নিয়ে যান আলমগীর হোসেন। খননের প্রায় শেষ দিকে বেলা তিনটার সময় শ্রমিকরা মাটির নিচ থেকে বিশাল আকৃতির চাড়ির মধ্যে সুরক্ষিত একটি মাটির কলস পান। সেটি গোপন করতে শ্রমিকরা তৎপরতা শুরু করলে টের পান বাড়িতে থাকা নারীরা। তারা ব্যবসায়ী আলমগীর হোসেনকে খবর দেন। তড়িঘড়ি করে বাড়ি ফিরলেও ওই মাটির কলস নিয়ে উধাও হয়ে যান শ্রমিকরা। তাদের সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগের চেষ্টা করেও বন্ধ পান আলমগীর। পরে তিনি থানা পুলিশকে জানান। ওই দিন সন্ধ্যায় পুলিশ গিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতাউর রহমান জানান, ওই শ্রমিকরা অত্যন্ত কৌশলী। তারা আত্মগোপনে রয়েছেন। তাদের ধরতে মাঠে নেমেছে পুলিশ। শিগগিরই তাদের হদিস মিলবে। তাদেরকে পাওয়া গেলে রহস্যের জট খুলবে বলে জানান ওসি।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ জাগোনিউজ২৪