গ্রামীণ ট্রাভেলসের বাসে ডাকাতিতে বাধা দেয়ায় রাবি শিক্ষককে ছুরিকাঘাত

নাটোর রাজশাহী রাজশাহী বিভাগ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলায় ঢাকা থেকে রাজশাহীগামী গ্রামীণ ট্রাভেলসের একটি যাত্রীবাহী (এসি) বাসে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এসময় বাধা দিলে ডাকাত সদস্যের ছুরিকাঘাতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক রবিউল ইসলাম আহত হয়েছেন।

গত বুধবার রাত ১০টার দিকে বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কের বড়াইগ্রাম এলাকার রেজুর মোড়ে এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে। আহত বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষককে বড়াইগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনার পর পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে উপজেলার চান্দাই ইউনিয়নের গাড়ফা এলাকা থেকে ডাকাতির বেশকিছু মালামালসহ রতন মিয়া (৩৩) নামে এক মাইক্রোবাস চালককে আটক করে। আটককৃত রতনের বাড়ি পাবনার সাঁথিয়া থানার সাততিলা গ্রামের আবুল বাশারের ছেলে।

বাসের আরেক যাত্রী রাবির ফলিত রসায়ন ও রসায়ন প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক রুস্তুম আলী জানান, বাসের ই-১ আসনের যাত্রী ছিলেন তিনি। ঢাকা থেকে ২৪ জন যাত্রী নিয়ে বিকেল ৩টায় বাসটি ছাড়ে। ঢাকা থেকেই যাত্রী সেজে ডাকাত সদস্যরা ওই গাড়িতে উঠেছিলেন। বনপাড়া হাটিকুমরুল মহাসড়কের টোল প্লাজা পার হওয়ার পরে ডাকাত সদস্যরা জোরপূর্বক গাড়ি তাদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নেন। এসময় ৬ থেকে ৭ জন যাত্রীদের নিকট থেকে নগদ টাকা, মোবাইল ফোনসহ বিভিন্ন মালপত্র ছিনিয়ে নিয়ে যায়। তাদেরকে প্রতিহত করতে চাইলে শিক্ষক রবিউল ইসলামকে ছুরিকাঘাত করে আহত করে তারা।

যাত্রীদের বরাত দিয়ে বড়াইগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহরিয়ার খান জানান, ডাকাত সদস্যরা যাত্রী বেশে বিকেল ৩টায় ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা ওই বাসে উঠেছিল। পথে কাছিকাটা টোলপ্লাজা পার হয়ে তারা যাত্রীদের অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ডাকাতি শুরু করে। পরে রেজুর মোড়ে বাসটি পৌঁছালে বাস থামিয়ে যাত্রীদের কাছ থেকে নগদ টাকাসহ বিভিন্ন মালামাল নিয়ে নেমে যায়। সেখানে আগে থেকেই দাঁড়িয়ে থাকা তাদের একটি মাইক্রোবাসে করে পালিয়ে যায় তারা। ডাকাতিকালে বাধা দেয়ায় রবিউল নামে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষক আহত হয়েছেন। তাকে বড়াইগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

ওসি জানান, যাত্রীদের তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ তাৎক্ষণিক উপজেলার বিভিন্ন স্থানে চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি শুরু করে। একপর্যায়ে গারফা এলাকা থেকে একটি মাইক্রোবাসসহ রতন নামে এক চালককে আটক করা হয়। এসময় তার কাছ থেকে তিনটি মোবাইল ফোন, একটি পাওয়ার ব্যাংক ও নারী যাত্রীদের ব্যাগ পাওয়া গেছে। ধারণা করা হচ্ছে ডাকাত সদস্যরা পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আগেই মালামাল নিয়ে পালিয়ে গেছে।

খবরটি প্রকাশিত হয়েছেঃ ডেইলি সানশাইন