চরম ঝুঁকি তবুও পারাপার

রাজশাহী

রবিবার রাজশাহী নগরীর গ্রেটার রোড রেল ক্রসিং হয়ে সকালের দিকে একটি ট্রেন রাজশাহী থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জের দিকে ছুটে চলেছে। এই ক্রসিং সংলগ্ন দুই ধারের রাস্তায় চলাচলকারীদের নিরাপত্তার জন্য রেল নিজস্ব জনবল দিয়ে ব্যবস্থা করে রেখেছে। তবে রাস্তাদিয়ে চলাচলকারীদের অধিকাংশই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সিগন্যাল অমান্য করে রাস্তা পারাপার হচ্ছেন। আর সিগন্যালের দায়িত্বে থাকা রেলের সংশ্লিষ্ট কর্মচারী হাতে একটি সবুজ পতাকা নিয়ে নির্বিকার দাড়িয়ে রয়েছেন।

নগরীর কাশিয়াডাঙ্গা, কোর্ট স্টেশন, বাইপাস মোড়, বন্দোগেট, দরিখরবোনার মোড়, ভদ্রা মোড়সহ গুরুত্বপূর্ণ রেল ক্রসিংগুলো ঘুরে দেখা গেছে প্রায় একই চিত্র। নিয়ম অমান্য করে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ডাউন ফেলা অবস্থায় রাস্তা পারাপার করা হলেও সংশ্লিষ্ট অনিয়মকারীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নিতে দেখা যায় না।

রাজশাহী নগরীর গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাগুলোর অনেক পয়েন্টেই রেল ক্রসিং রয়েছে। সেই ক্রসিংগুলোর অধিকাংশই অরক্ষিত। আবার যেগুলোতে রেলের নিজস্ব জনবল দিয়ে ডাউন ফেলার বা সিগন্যালের ব্যবস্থা রয়েছে সেগুলোও যানবাহন ও পথচারীরদের অসচেতনতায় ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। রেল কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি নগারিক অসচেতনতায় ঘটছে প্রাণহানীর মতো ঘটনা।

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রেল ক্রসিং সিগন্যাল অমান্য করে রাস্তা পারাপার হওয়া সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, তারা সময় বাঁচাতে এমন অনিয়ম করে থাকেন। আবার অনেকে লোক দেখাতেও এমনটা করছেন। আর এই অননিয়মের সাথে জড়িত শিক্ষিত অশিক্ষিতসহ সব বয়সের মানুষ।

বিশ্লেষকদের মতে, প্রাণহানীসহ যে কোন দুর্ঘটনা এড়াতে সরকারের উদ্যোগকে যদি আমরা আমলে না নেই তবে এর জের আমাদেরকেই নিতে হবে। তাই রেল ক্রসিং দুর্ঘটনা এড়াতে জনগণকেও এগিয়ে আসতে হবে। সিগন্যাল মেনে চলাচলের মানসিকতা গড়ে তুলতে হবে।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ দৈনিক সানশাইন