চলছে অরাজকতা, তদবির ছাড়া মিলছেনা টিকেট

রাজশাহী রাজশাহী বিভাগ

রাজশাহীতে ঈদের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে বৃহস্পতিবার (০৯ জুলাই) থেকে। কিন্তু অগ্রিম টিকিট নিয়েও শুরু হয়েছে অরাজকতা। টিকিটের জন্য কাউন্টারের সামনে ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থেকেও লাভ নেই। তদবির ছাড়া মিলছেনা টিকিট।

শনিবার (১১ জুলাই) সকালে রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনে আগাম টিকিটের জন্য আসা মহানগরের শিরোইল এলাকার অধিবাসী আফতাব আহমেদ জানান, ৯টার আগে থেকেই লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন। কিন্তু লাইনের শেষ থেকে একজন ভদ্রলোক মোবাইল নিয়ে কাউন্টারের গিয়েই টিকিট পান।

এ নিয়ে সবাই প্রতিবাদও করেন। কিন্তু কোনো লাভ হয়নি। আবার অনেক ক্ষেত্রে কাউন্টারে গিয়ে নির্দিষ্ট কারও নাম বললেই টিকিট দিয়ে দিচ্ছে। আর যারা লাইনের পেছন থাকছেন তারা ভাগ্যে বেশিরভাগ সময়ই টিকিট মিলছে না। সাফ বলে দেওয়া হচ্ছে টিকিট শেষ। এভাবে ঈদের অগ্রিম টিকিটের জন্যও এখন বড় নেতা বা কর্মকতার তদবির লাগছে।

রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন ঘুরে দেখা গেছে, প্রশাসনের নজরদারির কারণে এবার টিকিট কালোবাজারিরা ভিড়তে পারছে না। বিভিন্ন ধরনের অপরাধ ঠেকাতে রেলের নিরাপত্তাকর্মীদের পাশাপাশি, জিআরপি পুলিশ, মহানগর পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যরা নিয়মিত টহল দিচ্ছেন। তবে তদবির ছাড়া টিকিট পেতে গলদঘর্ম সাধারণ যাত্রীদের। অনেকে কাউন্টারের সামনে গিয়েই অদৃশ্য ইশারায় পেয়ে যাচ্ছেন টিকিট নামের সোনার হরিণ।

টিকিট বিক্রি চলবে সোমবার (১৩ জুলাই) পর্যন্ত। শনিবার দেওয়া হচ্ছে, ১৫ জুলাইয়ের অগ্রিম টিকিট। ১২ জুলাই দেওয়া হবে ১৬ জুলাই এবং ১৩ জুলাই দেওয়া হবে ১৭ জুলাইয়ের টিকিট। কাউন্টার থেকে একজন যাত্রীকে সর্বোচ্চ চারটি করে টিকিট দেওয়া হচ্ছে। আর ঈদ ফেরত যাত্রীদের জন্য টিকিট দেওয়া হবে ১৬ জুলাই থেকে।

রাজশাহী পশ্চিমাঞ্চল রেলওয়ের সুপারিনটেন্ডেন্ট আবদুল করিম বাংলানিউজকে জানান, আগামী ১৬ জুলাই দেওয়া হবে ২০ জুলাইয়ের টিকেট। অনুরূপভাবে ১৭ জুলাই দেওয়া হবে ২১ জুলাইয়ের, ১৯ জুলাই দেওয়া হবে ২২ ও ২৩ জুলাইয়ের এবং ২০ জুলাই দেওয়া হবে ২৪ জুলাইয়ের আগাম টিকিট।

এক প্রশ্নের জবাবে আবদুল করিম বলেন, তদবির ছাড়া টিকিট মিলছে না একথা সম্পূর্ণ ভুল। নিরাপদ ও আরামদায়ক ভ্রমণের জন্য ট্রেনের ওপর সব সময়ই একটু বেশি চাপ থাকে। এরপরও টিকিট থাকা পর্যন্ত দেওয়া হচ্ছে। টিকিটের বিভিন্ন কোটাও রয়েছে। দুই একজন যারা নিচ্ছেন তারা হয়ত কোটার টিকিট নিচ্ছেন। তা দেখে অন্যরা ভুল বুঝে থাকতে পারেন। রাজশাহী থেকে মূলত ঈদ ফেরত টিকিটের চাপ থাকে। যা ১৬ জুলাই থেকে বিক্রি শুরু হবে। এছাড়া স্বাভাবিক নিয়মেই সব হচ্ছে।

আবদুল করিম বলেন, ঈদের টিকিট কালোবাজারি ও অসাধু চক্র ঠেকাতে এবার বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। কেউ কালোবাজারির চেষ্টা করলে তাকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে তুলে দেওয়া হবে। তাদের কেউ জড়িত থাকলেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

সূত্রঃ বাংলানিউজ২৪ডটকম