চেয়ারম্যান শূন্য বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ-‘বিএমডিএ’

রাজশাহী

দীর্ঘ নয় মাস থেকে চেয়ারম্যানের পদ শূন্য হয়ে আছে রাজশাহী বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ-বিএমডিএ’তে। এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠানের শীর্ষকর্তার পদ শূন্য থাকায় বিএমডিএ’র বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনার ক্ষেত্রে বর্তমানে দেখা দিয়েছে স্থবিরতা। চেয়ারম্যানের পর মেয়াদ শেষে গত নভেম্বরে চলে গেছেন নির্বাহী পরিচালক আহসান জাকিরও। তাই এখন তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আবদুর রশীদকে ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক দিয়েই চলছে চেয়ারম্যান শূন্য বিএমডিএ’র যাবতীয় কার্যক্রম।

গত বছরের ১৬ আগস্ট চেয়ারম্যান হিসেবে মেয়াদ শেষ করেন নুরুল ইসলাম ঠাণ্ডু। এর আগে দু’দফায় দুই বছর করে এবং শেষ দফায় এক বছর করে মোট পাঁচ বছর চুক্তিভিত্তিক নিয়োগে সচিব পদ মর্যাদায় চেয়ারম্যান ছিলেন প্রবীণ এ আওয়ামী লীগ নেতা। তারপর নতুন করে আর কেউ দায়িত্ব পাননি। বিএমডিএ’র মনিটরিং অফিসার আশরাফুল ইসলাম বলেন, নির্বাহী পরিচালক আহসান জাকির গত নভেম্বরে (২০১৪) মেয়াদ শেষে অবসরে গেছেন। বর্তমানে তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আবদুর রশীদ ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালকের দায়িত্ব পালন করছেন। এতে বিএমডিএ’র কার্যক্রমে ব্যাঘাত ঘটছে না।

নিয়োগের বিষয়টি মন্ত্রণালয় বিবেচনা করছে। তবে নতুন কোনো নির্দেশনা পাননি বলে জানান মনিটরিং অফিসার আশরাফুল। বিএমডিএ’র সাবেক চেয়ারম্যান প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা নুরুল ইসলাম ঠাণ্ডু জানান, গত বছরের ১৬ আগস্ট তিনি মেয়াদ পূর্ণ করেছেন। এর আগে পাঁচ বছর দায়িত্ব পালন করেছেন। এরপর দীর্ঘ নয় মাস অতিবাহিত হয়েছে। এখন নতুনভাবে কাকে চেয়ারম্যান নিয়োগ দেওয়া হবে সেটি প্রধানমন্ত্রীর এখতিয়ারভুক্ত বিষয়। যাকে দায়িত্ব দেবেন তিনিই তা পালন করবেন।

এদিকে মঙ্গলবার (২৬ মে) বিএমডিএ’র ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী প্রকৌশলী আবদুর রশীদের দফতরে গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি। পরে তার মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি। তবে তার একান্ত সহকারী নূরুল ইসলাম জানিয়েছেন, ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক ঢাকা গেছেন। বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশনের অধীনে ১৯৮৫ সালে সরকার ‘সমন্বিত বরেন্দ্র উন্নয়ন প্রকল্প’ শীর্ষক একটি প্রকল্প অনুমোদন করে। ১৯৯০ সালে বরাদ্দ করা তহবিলের মাত্র ২৬ শতাংশ ব্যয় দেখিয়ে প্রকল্পটি সমাপ্ত হয়। সমাপ্তের পর প্রকল্প বাস্তবায়ন পদ্ধতি পুনরায় বিবেচনা করা হয়।

এ সময় উন্নয়ন কার্যক্রম গতিশীল করতে কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীনে ১৯৯২ সালের ১৫ জানুয়ারি ‘বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ’ নামে প্রতিষ্ঠানটি গঠিত হয়। কর্তৃপক্ষ এ পর্যন্ত ৩০টি উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে।

1 thought on “চেয়ারম্যান শূন্য বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ-‘বিএমডিএ’

Comments are closed.