জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্ভার সমস্যা, ভোগান্তিতে হাজারো শিক্ষার্থী

রাজশাহী রাজশাহী কলেজ

ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়া ও শিক্ষা ক্ষেত্রে আধুনিকায়নের পদক্ষেপ হিসেবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি কাজ অনলাইনে করা হয়।সম্প্রতি ডিগ্রী ভর্তি ফরম, মাস্টার্স ১ম বর্ষ রিলিজের আবেদন, মাস্টার্স শেষ বর্ষ(প্রাইভেট)এর ভর্তি ফরম ও অনার্স ১ম বর্ষের রিলিজ এর আবেদন ফরম শুরু হয়। কিন্তু এইসব আবেদন ফরম পূরণ করতে এসে সার্ভার সমস্যার জন্য বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছে অসংখ্য শিক্ষার্থী। অনলাইন পয়েন্ট গুলোতে কথা বলে জানা যায় সারাদিনে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েব সাইটে প্রবেশ করাই যায়না। আবার কখনো কখনো প্রবেশ করা গেলেও আবেদনের শুরুতেই, বা মাঝামাঝি বা শেষ পর্যায়ে গিয়ে সফল হওয়া যায়না।এদিকে প্রতিনিয়ত গ্রাম গঞ্জ থেকে আসা শিক্ষার্থীরা অনলাইন পয়েন্টে এসে ভীড় করছে কিন্তু কোন সার্ভিস না পেয়ে তারা হতাশ হয়ে ফিরে যাচ্ছে। তাদের আবেদনের সময় সীমা শেষ হয়ে গেলেও কর্তৃপক্ষের বিশেষ কোন নজর আসেনি। কোন কোন সময় আবেদনের সময় সীমা বৃদ্ধি করা হলেও কাজের কাজ কিছুই হচ্ছেনা বলে জানান শিক্ষার্থীরা। বিশেষ করে অনার্স ১ম বর্ষের ছাত্র-ছাত্রী বেশী হওয়ায় তারা বেশ বিচলিত হয়েই ঘোরাঘুরি করছে অনলাইন পয়েন্টগুলোতে। সর্বশেষ অনলাইন পয়েন্ট মালিকেরা শিক্ষার্থীদের কথা বিবেচনা করে গভীর রাতে প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন আবেদন সম্পন্ন করার। রাজশাহী কলেজের সামনে লোকনাথ মার্কেটে অবস্থিত হিমা কম্পিউটারের রিপন ও নয়ন মাহমুদ জানান “গতরাতে সারারাত জেগে ১৮০ টা বুকিং নেয়া ফরমের মধ্যে মাত্র ২৯ টা সফল হতে পেরেছেন। তারা জানান সারারাত প্রচেষ্টার ফলে ভোর ৪ টার দিকে কিছু কিছু কাজ করতে পেরেছেন”। আজাদ কম্পিউটারের মালিক জানান “একদিকে হরতাল অবরোধ অন্যদিকে সার্ভার সমস্যায় জর্জরিত হয়ে পড়েছে ব্যবসা। এখন ব্যবসার সময় কিন্তু কাজ করতে পারছিনা। তাই বাধ্য হয়েই গভীর রাতে কাজ করে কিছুটা পুষিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছি”। এদের মধ্যে অনেক দোকান মালিক রয়েছে যারা এই ব্যবসার পেছনে টাকা বিনিয়োগ করতে গিয়ে বিভিন্ন সংস্থার কাছে ঋনী হয়ে পড়েছেন। এখন আশানুরুপ কাজ করতে না পেরে তাদের পথে বসার মত অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে।
উল্লেখ্য রাজশাহী কলেজকে কেন্দ্র করে লোকনাথ মার্কেটে গড়েছে একটি বৃহৎ অনলাইন পয়েন্ট। এছাড়া আশে পাশে সহ প্রায় ১৫০-২০০ টি অনলাইন পয়েন্ট রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.