জামিন পেয়েছেন সালাহ উদ্দিন

জাতীয়

ভারতে আটক বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও প্রাক্তন মন্ত্রী সালাহ উদ্দিন আহমদ জামিন পেয়েছেন। ভারতের মেঘালয় রাজ্যের শিলং জেলা জজ আদালত শুক্রবার দুপুরে তাকে জামিন দেন। স্ত্রী হাসিনা বেগমের করা জামিন আবেদনের প্রেক্ষিতে শিলংয়ের একটি আদালত তাকে জামিন দেন বলে নিশ্চিত করেছেন স্থানীয় সংবাদকর্মীরা। তবে তিনি ভারত ছাড়তে পারবেন কি না, তা জানা যায়নি। এটি পরে জানা যেতে পারে।

এর আগে বুধবার সালাহ উদ্দিনের জামিন চাইলে তা প্রত্যাখ্যান করে ১৪ দিনের বিচারিক হেফাজতে পাঠান শিলংয়ের ওই আদালত। আইনি হেফাজতে নেওয়ার পর অসুস্থ বোধ করায় বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দফায় ভারতের শিলংয়ের নেগ্রিমস হাসপাতালে নেওয়া হয় সালাহ উদ্দিনকে। ১১ মে সালাহ উদ্দিনকে অনুপ্রবেশের দায়ে আটকের পর প্রথমবারের মতো তাকে পুলিশি হেফাজতে নেওয়া হয়।

এর আগে পুলিশি পাহারায় তিনি শিলংয়ের মানসিক হাসপাতাল, সিভিল হাসপাতাল ও নেগ্রিমসে চিকিৎসাধীন ছিলেন।
ভারতে অনুপ্রবেশের অভিযোগে শিলংয়ের পুলিশ সালাহ উদ্দিনের বিরুদ্ধে ‘ফরেনার্স অ্যাক্ট-৪৬’-এ মামলা করে।

এখন সালাহ উদ্দিনের স্ত্রী তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর বা তৃতীয় কোনো দেশে নিয়ে যেতে চান। আদালত থেকে তিনি যেহেতু জামিন পেলেন, সেহেতু তার ভারত ত্যাগের বিষয়টি এখন নির্ভর করছে দেশটির সরকারের ওপর। এ ব্যাপারে ছাড়পত্র দিলেই তিনি উন্নত চিকিৎসার জন্য তৃতীয় কোনো দেশে যেতে পারবেন।