ঢাকা ও নারায়নগঞ্জ থেকে রাতে মানুষ আসছে চাঁপাইনবাবগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলায়

চাঁপাইনবাবগঞ্জ রাজশাহী বিভাগ

করোনা ভাইরাসে পৃথিবী এখন মৃত্যুপুরী। বাংলাদেশে দিন দিন বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। বিশেষ করে ঢাকা, নারায়নগঞ্জ ও মানিকগঞ্জ এখন ঝুঁকিপূর্ন এলাকা। তাই করোনা ভাইরাস সংক্রমন রোধে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার।

সরকারি নির্দেশ অনুযায়ি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা, সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা, গনজমায়েত না করা, হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করা, হাট বাজার বন্ধ রাখা ও মসজিদে না যাবার জন্য প্রচার-প্রচারনা চললেও চাঁপাইনবাবগঞ্জে এখনও নিয়মনীতি মানছেনা অসচেতন জনগন। সর্বশেষ গত ৬ এপ্রিল রাতে মানিকগঞ্জ থেকে গোমস্তাপুরে আসা এক শ্রমিক করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যান। ওই এলাকা লকডাউন করা হলেও মৃত ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করতে ব্যর্থ হয় স্বাস্থ্য বিভাগ।

জানা গেছে, ওই বৃদ্ধের সাথে ট্রাকে করে অন্তত ৫০ জন ব্যক্তি দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে এসেছিল। অন্যদিকে নাচোলের এ মানবাধিকার কর্মী জানান, নাচোলে গত ১ সপ্তাহে ২ শতাধিক কর্মজীবি নাচোলে ফেরেন। এছাড়াও ভোলাহাট ও শিবগঞ্জেও রাতের অন্ধকারে আসছেই মানুষ। সচেতনমহল ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, অতি মূনাফার লোভে কিছু এ্যাম্বুলেন্স, মাইক্রোবাস, প্রাইভেটকার, মিনিট্রাকে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে বিভিন্ন কৌশলে মানুষ নিয়ে আসছে। এতে করোনা ভাইরাস সংক্রমিত হবার আশংকা করছেন সচেতনমহল।

অন্যদিকে শিবগঞ্জ পৌর এলাকার তরকারি পট্টিতে ভোর থেকে দুপুর পর্যন্ত বসছে পিঁয়াজ – রসুন সহ কৃষি পন্যের হাট। যেখানে সামাজিক দুরত্ব তো দুরের কথা মানুষের চাপে হাটে দাঁড়ানোর কোন জায়গা পর্যন্ত নেই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যাক্তি ক্ষোভের সাখে জানান, প্রশাসনের নাকের ডগার উপর দিয়ে এসব হাট বসছে।এতে তাদের করোনা ভাইরাসে সংক্রামনের ঝুঁকি বাড়ছে। অন্যদিকে কানসাট শহরের পাশেই বসছে বিরাট মাছের আড়ৎ। সেখানে গোমস্তাপুর ও ভোলাহাট সহ ৩ উপজেলার মাছচাষী,ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের সমাগম ঘটলেও হাটটিতে সামাজিক দুরত্ব মানার কোন উদ্যোগ নেয়নি প্রশাসন।

স্থানীয়দের দাবী এসব হাট কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রন অথবা বন্ধ করে দেয়া জরুরী।সেসাথে যারা জেলার বাইরে থেকে আসছে তারা কোয়ারেনটাইনে থাকছে কিনা তা নজরদারী করার পাশাপাশি ঐসব বাড়িগুলো আগের মতই চিন্হিত করে দেয়া জরুরী।

এ ব্যাপারে শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিমুল আখতার জানান, মাছ বাজারের বিষয়টি তিনি অবগত হলেন। দ্রুত এর ব্যবস্থা নেবেন।পাশাপাশি শিবগঞ্জ পৌর এলাকার তরকারি পট্টিরি হাটটি স্থানান্তরের মাধ্যমে একটি নীতিমালার মধ্যে আনা হবে। যেন হাটে সামাজিক দুরত্ব বজায় থাকে।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ দৈনিক সানশাইন