তরুণীর সাত টুকরা লাশ: একজন গ্রেপ্তার

জাতীয়

রাজধানীর ফকিরাপুল এলাকায় এক তরুণীকে হত্যার পর লাশ সাত টুকরা করে ফেলে দেওয়ার ঘটনায় একজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব।

তার নাম, জাহাঙ্গীর হোসেন সোহেল ওরফে বাংলা সোহেল (২৮)।

র‌্যাব-৩ এর অধিনায়ক খন্দকার গোলাম সরোয়ার শনিবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে র‌্যাবের টিকাটুলীর কার্যালয়ে এক ব্রিফিংয়ে বলেন, “শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ফকিরাপুল বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।”

“নিহত সুমী (২৪) মাদক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত ছিলেন বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। মাদকের টাকা লেনদেন সংক্রান্ত বিরোধের জেরে এই হত্যার ঘটনা ঘটতে পারে।” পরে জিজ্ঞাসাবাদে সোহেল র‌্যাবকে জানিয়েছে, ৯ মার্চ সন্ধ্যা ৭টার পর মাদক ব্যবসায়ী মোবারক উল্লাহ ওরফে মন্টি তার ফকিরাপুলের রোকেয়া আহসান মঞ্জিলে সুমীকে ডেকে পাঠায়। সেই সময় বাসায় মন্টি ছাড়াও সাইদুল এবং সুজনসহ আরও কয়েকজন মধ্যরাত পর্যন্ত মাদক সেবন করেছিলেন।

“মধ্যরাতে মাদক সংক্রান্ত অর্থ লেনদেনের পূর্ব শত্রুতার জের ধরে তারা সুমীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যা করে,” বলেন র‌্যাব কর্মকর্তা খন্দকার গোলাম সরোয়ার। গত ১০ মার্চ রাজধানীর ফকিরাপুল পানির ট্যাঙ্ক সংলগ্ন হোটেল উপবনের পাশে রোকেয়া আহসান মঞ্জিলের ছাদ ও আশেপাশের তিনটি বাড়ির ছাদ থেকে অজ্ঞাত এক তরুণীর কয়েক টুকরা লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। অজ্ঞাত ওই তরুণীর মুখমণ্ডল আগুলে ঝলসে দেওয়া হয়েছিল।

পরে এ ঘটনায় মতিঝিল থানা পুলিশ অজ্ঞাত ৬/৭কে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।

খবরঃ বিডিনিউজ২৪