দীর্ঘ ছুটি শেষে জমজমাট রাবি ক্যাম্পাস

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

গ্রীষ্মকালীন অবকাশ ও ঈদুল ফিতরের দীর্ঘ ছুটি শেষে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) অ্যাকাডেমিক ও দাপ্তরিক কার্যক্রম শুরু হয়েছে। বিশ^বিদ্যালয়ের ৪৭ দিন ছুটি শেষে সোমবার থেকে যথারীতি ক্লাস-পরীক্ষা শুরু হয়। এর আগে গত রবিবার সকালে আবাসিক হলসমূহ খুলে দেয়া হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রভাষ কুমার কর্মকার এসব তথ্য জানান। এদিকে দীর্ঘ ছুটি শেষে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের পদচারণায় ক্যাম্পাসের আবাসিক, অ্যাকাডেমিক ভবন, চত্বর ও চায়ের দোকানগুলো ভরে উঠেছে। প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে পেয়েছে মতিহারের সবুজ চত্বর।

বিশ^বিদ্যালয়য়ের জনসংযোগ দফতর সূত্রে জানা যায়, ঈদুল ফিতর ও গ্রীষ্মকালীন অবকাশ উপলক্ষে গত ৮ মে থেকে টানা ৪৭ দিন বিশ্ববিদ্যালয় ছুটি ঘোষণা করা হয়। আবাসিক হলসমূহ ৩০ মে থেকে ২৩ জুন পর্যন্ত বন্ধ রাখা হয়। এছাড়া গত ২১ জুন থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের দাপ্তরিক কার্যক্রম শুরু হয়।
সোমবার ক্যাম্পাস ঘুরে দেখা যায়, বিশ^বিদ্যালয়ের বিভিন্ন অ্যাকাডেমিক ভবনগুলোতে ক্লাস-পরীক্ষা শুরু হয়েছে। শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন চত্বর, চায়ের দোকানে চির পরিচিত আড্ডা ও গানের আসর বসিয়েছে। দীর্ঘদিন পর বন্ধু, শিক্ষক, সহকর্মীদের সঙ্গে দেখা হয়ে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা কুশল বিনিময় ও কোলাকুলি করছেন।

বিশ^বিদ্যালয়ের ফোকলোর বিভাগের শিক্ষার্থী কাজী মনিকা বলেন, অনেক দিন পর এত দীর্ঘ ছুটি পেয়েছিলাম। বাড়িতে পরিবারের সঙ্গে সুন্দর সময় কেটেছে। তবে ক্যাম্পাসের জন্য মন খুব টানতো। তাই হল খোলার দিনই চলে এসেছি।

নাট্যকলা বিভাগের শিক্ষার্থী সবুজ পারভেজ বলেন, প্রথম দিকে বাড়িতে খুব ভালো লাগছিল। কিন্তু ঈদের পর আর বাড়িতে থাকতে ভালো লাগছিল না। বারবার মতিহারের প্রিয় সবুজ চত্বরে ফিরে যেতে মন চাইছিলো। দীর্ঘ দিন পরে বন্ধু, শিক্ষক, সিনিয়ির-জুনিয়রদের সঙ্গে দেখা করতে পেরে যেন মনে হয় প্রাণে পানি ফিরে পেলাম।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ Daily Sunshine