দুইটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান করবে রাসিক

রাজশাহী

রাজশাহীতে একটি বিশ^বিদ্যালয় ও ছাত্রী মেডিকেল কলেজ নির্মানের উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে। রাজশাহী সিটি করপোরেশনের অধিনে এ উদ্যোগ নেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন মেয়র এএইচএম কামরুজ্জামান লিটন। শিক্ষা নগরী হিসেবে রাজশাহীকে আরো এক ধাপ এগিয়ে নিয়ে যেতে এ উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে।

শুক্রবার বিকেলে রাজশাহী শিশু একাডেমী মঞ্চে গোল্ডেন সান বৃত্তি পরীক্ষা-২০১৯ এর ফলাফল ঘোষণা, সনদপত্র ও ক্রেস্ট সহ বৃত্তির চেক বিতরণ উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন মেয়র।

অনুষ্ঠানে বক্তব্যে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেছেন, শিক্ষানগরী রাজশাহীতে সিটি করপোরেশন পরিচালিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেনি। আগামী এক বছরের মধ্যে একটি বিশ^বিদ্যালয়টি চালু করতে চাই। ক্যাম্পাস ইতোমধ্যে দেখা হয়েছে। এছাড়া ছাত্রীদের জন্য মেডিকেল কলেজ প্রতিষ্ঠা করতে চাই। নগরীতে উন্নত মানের ইংলিশ মেডিয়াম স্কুল গড়ে তোলা হবে।

এসময় মেয়র আরো বলেন, দেশের উন্নয়নের জন্য প্রয়োজন শিক্ষা। কাজেই আমাদের শিশুদের শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে হবে। গড়ে তুলতে হবে শিক্ষার পরিবেশ, শিক্ষার পরিবেশ গড়তে শিক্ষকদের পাশাপাশি অভিভাবক ও রাষ্ট্রেরও অনেক দায়িত্ব রয়েছে।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বেসরকারি উদ্যোগে এ ধরনের প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষা আয়োজনের প্রশংসা করে বলেন, এতে করে শিশু শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রতিযোগীতা মূলক মনোভাবের বিকাশ ঘটবে এবং তাদের মধ্যে শিক্ষার মনোভাব বৃদ্ধি পাবে। গোল্ডেন সান বৃত্তি পরীক্ষা প্রদান কমিটির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ বাবলুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের ৫২ জন কৃতি শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্রেস্টসহ সনদপত্র ও বৃত্তির চেক প্রদান করেন মেয়র।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড রাজশাহীর চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মোহা. মোকবুল হোসেন, গোল্ডেন সান বৃত্তি পরীক্ষা প্রদান কমিটির প্রধান উপদেষ্টা দৈনিক সোনালী সংবাদ সম্পাদক লিয়াকত আলী, শহীদ মামুন মাহমুদ পুলিশ লাইনস স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ ড. গোলাম মাওলা ও বৃত্তি পরীক্ষা প্রদান কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান রাঙাপরী ডেভেলপার্স এন্ড প্রপার্টিজ এর চেয়ারম্যান মাসুম সরকার। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন বৃত্তি পরীক্ষা প্রদান কমিটির পরিচালক ( সার্বিক) রফিক আলম।

প্রথম হতে অষ্টম শ্রেণির ৫০ জন শিক্ষার্থীকে বৃত্তি প্রদান করা হয়। প্রথম শ্রেণির ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি প্রাপ্ত আকিব হোসাইন (শিক্ষা বোর্ড মডেল স্কুল), লাবীবা আনান (গোল্ডেন সান স্কুল), গৌরী সরকার (বিশ্বঃ স্কুল), আবাইয়াদ হুসাইন (সাফল্য কোচিং)। প্রথম শ্রেণির সাধারণ গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত তাকিয়া উসলাম ( শিক্ষা বোডর্ মডেল), এরশাদুল রহমান ( এ.সান কেজি স্কুল)। প্রথম শ্রেণির বিশেষ গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত রিদওয়ান মোশারফ (মির্জাপুর প্রাইমারী স্কুল), মুস্তাকীম বিল্লাহ ( এ.সান কেজি স্কুল)। মাহদী হাসান ( মকবুল হোসেন ল্যাবরেটরী), হারুনুর রশিদ( হাজী মুহসীন)।

দ্বিতীয় শ্রেণির ট্যালেন্টপুলের বৃত্তি প্রাপ্ত মুমতাহিনা কানিজ (গ্রীন লাইট), তাসফিয়াত জান্নাত ( গুড উইল কোচিং), আরিশা হক ( প্রতিভা পাবলিক), সায়েদা তাসনীম ( রাজশাহী মডেল), জাফনা নাওয়ার ( এক্সাস কেয়ার), দ্বিতীয় শ্রেণির সাধারণ গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত ওহি হক (সাফল্যা কোচিং), উম্মে তাবাসসুম ( এক্সাস কেয়ার), রাহাত শাহরিয়ার (হোসনী গঞ্জ প্রাইমারী), দ্বিতীয় শ্রেণির বিশেষ গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত তাসমীয়া তাবাসসুম (গ্রীন লাইট পাবলিক স্কুল), নওশিন আনজুম ( ইস্ট ওয়েস্ট), হুমায়রা হাফসা (ভিশন স্কুল), জুনাইদ রহিব ( প্রত্যাশা আইডিয়াল)। তৃতীয় শ্রেণির ট্যালেন্টপুলের বৃত্তি প্রাপ্ত নুদার সুলতানা (পি.এন.),তৃতীয় শ্রেণির সাধারণ গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত নিশাত সুলতানা (পি.এন.),তৃতীয় শ্রেণির বিশেষ গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত নোশিন শারমীলা (পি.এন.), আহনাফ হাসান (কলেজিয়েট),চতুর্থ শ্রেণির ট্যালেন্টপুলের বৃত্তি প্রাপ্ত সাবিক হোসেন (কলেজিয়েট), চতুর্থ শ্রেণির সাধারণ গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত সায়র আজাদ নানক (ল্যারেটরি) ,চতুর্থ শ্রেণির বিশেষ গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত তামিমুর রহমান (কলেজিয়েট),পঞ্চম শ্রেণির ট্যালেন্টপুলের বৃত্তি প্রাপ্ত সাবিক প্রার্থনা চৌধুরি তাথৈ( নওহাটা প্রাইমারি), পঞ্চম শ্রেণির সাধারণ গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত রিদওয়ানমীন(ল্যারেটরি) পঞ্চম শ্রেণির বিশেষ গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত ফাতেমা খাতুন(শিক্ষা স্কুল), সাদ আহমাদ চৌধুরি( এল, পি.সি. ল্যাবরেটরি),ষষ্ঠ শ্রেণির ট্যালেন্টপুলের বৃত্তি প্রাপ্ত আসফিকুল ইসলাম (কলেজিয়েট),ষষ্ঠ শ্রেণির সাধারণ গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত আফিয়া ফাহমিদা ইভানা (পি.এন),ষষ্ঠ শ্রেণির বিশেষ গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত জুনাইদ মাসউদ( কলেজিয়েট), রওনক জাহান (হেলেনাবাদ), মাইমুনা খাতুন( নওহাটা বালিকা বিদ্যালয়),সপ্তম শ্রেণির ট্যালেন্টপুলের বৃত্তি প্রাপ্ত তামজীদ হোসাইন প্রধান (কলেজিয়েট), তাহসিনুল ইসলাম(কলেজিয়েট),সপ্তম শ্রেণির সাধারণ গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত মাসর“র ইসলাম( সিরোইল), কে.এস. মুবাশ্বির (কলেজিয়েট) সপ্তম শ্রেণির বিশেষ গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত দেবোজিত কুমার বিশ্বাস (কলেজিয়েট), আসিকুল ইসলাম ( আল ইসলাম ইসলামী একাডেমী), আফরিন আজাদ রিচি (দাওকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়),অষ্টম শ্রেণির ট্যালেন্টপুলের বৃত্তি প্রাপ্ত তাহসীন মাসুদ ( ল্যাবরেটরি), নূরীন তাবাসসুম তানিয়া (পি.এন.) অষ্টম শ্রেণির সাধারণ গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত সাকিফ আলম (ল্যাবরেটরি) অষ্টম শ্রেণির বিশেষ গ্রেডে বৃত্তি প্রাপ্ত তানিম খাতুন আনিক (দাওকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়), তারিন ঋতু( দাওকান্দি উচ্চ বিদ্যালয়)। সেরা ইনভিজিলেটর হিসাবে প্রথম চিত্রগীতি আর্ট স্কুলের পরিচালক সুমাইয়া পারভীন রাত্রী, দ্বিতীয় আলহাজ্ব মকবুল হোসেন ল্যাবরেটরী স্কুলের সহকারী শিক্ষিকা দিলর“বা আক্তার,তৃতীয় গোল্ডেন সান স্কুলের সিনিয়র সহকারী শিক্ষিকা শামীমা আকতার শিলু। সেরা কাউন্টারের স্বীকৃতি পুরস্কার পেয়েছেন পদ্মা বই বিতান। সর্বো”চ বৃত্তি প্রাপ্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পুরস্কার পেয়েছে রাজশাহী কলেজিয়েট স্কুল। বৃত্তি পরীক্ষায় ১০০ নম্বরের মধ্যে ১০০ পেয়ে সর্বোচ্চ নম্বর প্রাপ্তির পুরস্কার পেয়েছে গভ: ল্যাবরেটরী স্কুলের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র এস.এম তাহসীন মাসুদ ও সরকারী পি.এন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী নুরীন তাবাসসুম তানিয়া।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ দৈনিক সানশাইন