দুর্গাপুরে ছাত্রকে পেটালো দুই শিক্ষক

দুর্গাপুর রাজশাহী বিভাগ

দুর্গাপুরের নওপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে পরীক্ষা শেষ হওয়ার নির্ধারিত সময়ের আগেই খাতা কেড়ে নেয়ায় বাধা প্রদান করায় দশম শ্রেণীর এক ছাত্রকে পিটিয়ে জখম করেছে বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষক। এ ঘটনায় ওই বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, উপজেলার নওপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে রোববার দশম শ্রেণীর বাংলা প্রথম পত্র পরীক্ষা চলছিল। সকাল ১০ টা থেকে শুরু হওয়া ওই পরীক্ষা দুপুর ১টায় শেষ হওয়ার কথা থাকলেও পরীক্ষা শেষ হওয়ার ১৫ মিনিট আগে ছাত্র-ছাত্রীদের কাছ থেকে খাতা কেড়ে নিতে থাকে শিক্ষক আব্দুল মালেক। এ সময় দশম শ্রেণীর ছাত্র সজীব সময়ের আগেই কেন খাতা কেড়ে নেয়া হচ্ছে এমন প্রশ্ন করলে অপর শিক্ষক ওয়াহেদ আলী কাঠের স্কেল দিয়ে সজীবকে পেটাতে শুরু করে। এক সময় সজীব শ্রেণী কক্ষের মেঝেতে পড়ে গেলে পেটানো বন্ধ করে শিক্ষকরা। এ সময় আহত সজীবকে উদ্ধার করে বাড়ি পৌছে দেয় তার সহপাঠিরা।

আহত স্কুল ছাত্র সজীবের বাবা আবুল কালাম অভিযোগ করেন, তুচ্ছ কারনে তার ছেলেকে যেভাবে পেটানো হয়েছে। তা কোন আদর্শবান শিক্ষকের কাজ হতে পারেনা। তিনি এ ঘটনার সুষ্ঠ বিচার দাবি করেছেন।
এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে বিদ্যালয়ের সভাপতি আক্কাস আলী কিছু জানেন না বলে দাবি করেন।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সোহরাফ হোসেন জানান, লিখিত পরীক্ষা শেষে নৈবেত্তিক পরীক্ষার ১০ মিনিট আগে খাতা দেয়া হয় যার কারনে নৈবেত্তিক পরীক্ষা শেষ হওয়ার ১০ মিনিট আগে খাতা নিয়ে নেয়া হয়। এর বাইরে আর কোন ঘটনা বিদ্যালয়ে ঘটেনি বলে তিনি দাবি করেন।