নাটোরে বেপরোয়া গতিসম্পন্ন চ্যালেঞ্জার বাসের ধাক্কায় নিহত ১৩

নাটোর

নাটোরের বড়াইগ্রামে চ্যালেঞ্জার নামক একটি বেপরোয়া গতিসম্পন্ন দ্রুতগামী বাসের ধাক্কায় সিএনজি চালিত লেগুনার ১৩ জন যাত্রী নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে কমপক্ষে আরো ১৫ জন।

শনিবার (২৫ আগস্ট) বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে নাটোর-পাবনা মহাসড়কের বড়াইগ্রাম উপজেলা সীমানা সংলগ্ন লালপুর উপজেলার ক্লিক মোডের সাদিয়া ফিলিং স্টেশনের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

বনপাড়া হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ শামসুর নূর জানান, বিকাল ৪টার দিকে পাবনা থেকে যাত্রী নিয়ে বেপরোয়া দ্রুতগামী চ্যালেঞ্জার পরিবহনের একটি বাস বগুড়ার উদ্দেশে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে লালপুর উপজেলার সাদিয়া ফিলিং স্টেশনের সামনে গেলে চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে বাসটি একটি লেগুনাকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই ১০ জন নিহত হন। আহত হন কমপক্ষে ১৫ জন। আহতদের দ্রুত হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে মারা যান আরো ৩ জন। নিহতরা সবাই লেগুনার যাত্রী বলে ধারণা করা হচ্ছে । লেগুনাটি পাবনা থেকে বনপাড়ার দিকে যাচ্ছিল। তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা জানায়, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে উদ্ধার কাজ শুরু করেছে। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি
করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান,চালক বাসটি বেপরোয়াভাবে চালাচ্ছিলেন। যেকারণে ঘটনাস্থলে এসে বাসের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে লেগুনাটিকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই ৫ জন পুরুষ, ৩ জন নারী ও ২ জন শিশু মারা গেছে।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ ডেইলি সানশাইন