নার্সিং সবচেয়ে শ্রেষ্ঠ পেশা

অন্যান্য খবর

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘নার্সিং সবচেয়ে শ্রেষ্ঠ পেশা। নার্সিং পোশাককে আমি অত্যন্ত সম্মান করি। নার্সরা সেবা দিয়ে একজন রোগীকে সুস্থ করে তোলেন। এ পেশাকে আমরা অত্যান্ত গুরুত্ব দিচ্ছি। নার্সিংয়ে স্নাতক, মাস্টার্স ও পিএইচডিসহ উচ্চতর ডিগ্রি করার সুযোগ সৃষ্টি হবে। শিগিগিরই আরো ১০ হাজার নার্স নিয়োগ দেয়া হবে। চিকিৎসা সেবা জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে চাই।’
তিনি বলেন, ‘রাজনীতির মূল উদ্দেশ্য হলো মানুষের সেবা করা। আমরা সেবার মানসিকতা নিয়েই কাজ করে যাচ্ছি। সরকারি ও বেসরকারিভাবে যেন আরো হাসপাতাল গড়ে উঠতে পারে সেজন্য আমরা সুযোগ করে দিয়েছি।’
বুধবার সকালে গাজীপুরে কাশিমপুরের সারাবোর তেঁতুইবাড়ি এলাকায় নার্সিং কলেজ চত্বরে শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে নার্সিং কলেজের শিক্ষা কার্যক্রম উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আগে বিশেষায়িত কোনো হাসপাতাল ছিলই না। তাও আমরা করেছি। নার্সিং কলেজের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা এ পেশায় আসার সুযোগ পাবে। তিনি প্রতিষ্ঠানকে টিকিয়ে রাখতে স্থানীয় জনগণ ও জন প্রতিনিধিদের সহায়তা কামনা করেন।’
স্বাস্থ সেবা নিতে তিনি বিদেশে যাওয়ার বিষয়ে অনিহা প্রকাশ করে বলেন, ‘তিনি নিজে অসুস্থ হলেও এ হাসপাতালে চিকিৎসা নেবেন। তিনি হাসপাতালের সামনের সড়কে একটি আন্ডারপাস তৈরির ঘোষণা দেন।’
প্রধানমন্ত্রী জানান, শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল বিশেষায়িত হাসপাতালটিকে পর্যায়ক্রমে ৫০০শয্যায় উন্নিত এবং একটি মেডিকেল কলেজ স্থাপন করা হবে।
তিনি মালয়েশিয়ার কেপিজে হেলথ কেয়ার বার্হাড-এর প্রেসিডেন্টের বরাদ দিয়ে বলেন, ‘এ প্রতিষ্ঠান থেকে শ্রেষ্ঠ ১০ নার্সকে বিনামূল্যে মালয়েশিয়ায় তাদের প্রতিষ্ঠানে উচ্চতর প্রশিক্ষণের সুযোগ দেয়া হবে।’
জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ট্রাস্টের সদস্য সচিব শেখ হাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন- স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, প্রকল্প পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, সচিব সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম, মালয়েশিয়া কেপিজে হেল্থ কেয়ার বার্হাড-এর প্রেসিডেন্ট তুয়ান হাজি আমির উদ্দিন আব্দুল সাতার।
এ ছাড়া অনুষ্ঠানে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন বক্তব্য রাখেন- বোর্ড অব ডিরেক্টরসের সদস্য নাজমুল হাসান পাপন, স্বাগত বক্তব্য রাখেন-জয়েন্ট কমিটিরচেয়ারম্যান মেজর জেনারেল অব. আব্দুল হাফিজ মল্লিক ও শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন কলেজের একজন নবীন ছাত্রী সাদিয়া ফারহানা।
নার্সিং কলেজের জনসংযোগ কর্মকর্তা আনম গোলাম রাব্বানী জানান, ২০১৩ সালের ১৮নভেম্বর ওই কলেজের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী দাতোশ্রী মোহাম্মদ নজীব বিন তুন আব্দুল রাজাক ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ট্রাস্টের সহ-সভাপতি শেখ রেহানা।
বেসিক কোর্সে ২৪জন এবং পোস্ট বেসিক কোর্সে ৪০জন শিক্ষার্থী নিয়ে যাত্রা শুরু করেছে এ প্রতিষ্ঠানটি।

সূত্র: বাংলা মেইল

Leave a Reply

Your email address will not be published.