নিয়ামতপুরে নিখোঁজ হওয়ার দেড় মাস পর যুবতীর গলিত লাশ উদ্ধার আটক চার

নওগাঁ রাজশাহী বিভাগ

নওগাঁর নিয়ামতপুরে নিখোঁজ হওয়ার দেড় মাস পর যুবতীর গলিত লাশ উদ্ধার। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চারজনকে আটক করেছে পুলিশ। থানা ও যুবতীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত আড়াই মাস পূর্বে উপজেলার নিয়ামতপুর (উত্তরবাড়ী)র রাশেদ মেনন রুমির ছেলে শাহরিয়ার শাওন (১৯) একই গ্রামের আবুল হোসেনের যুবতী কন্যা আলেমা (১৯) কে পালিয়ে নিয়ে গিয়ে বিয়ে করে ঢাকাতে অবস্থান করে।

দীর্ঘ এক মাস ১২দিন ঢাকাতে অবস্থান করার পর শাহরিয়ার শাওন ও আলেমা উভয়ে বাড়ীতে ফেরৎ আসে। এর কয়েক দিন পর হঠাৎ আলেমা নিখোঁজ হয়। আলেমাকে তার পরিবার কোথাও খুঁজে না পেয়ে থানা অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ উত্তরবাড়ীর উত্তর দিকের গোরস্থানের পাশের একটি পুকুরের পাড় থেকে গতকাল বেলা ৪টায় মাটিতে পুতে রাখা বস্তাবন্দী গলিত লাশ উদ্ধার করে থানা নিয়ে আসে।

পুলিশ তাৎক্ষনিক ছেলে শাহরিয়ার শাওন, ছেলের বাবা রাশেদ মেনন রুমি, মা সুলতানা রাজিয়া ও ছেলের চাচা নাহিদ রেজা রুবেলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে।

নিখোঁজ আলেমার ভাই শরীফ এ প্রতিবেদককে বলেন, আমার বোন আলেমা দীর্ঘ আড়াই মাস আগে শাওন এর সাথে পালিয়ে ঢাকা গিয়ে বিয়ে করে। এক মাস ১২দিন পর তারা বাড়ীতে ফিরে আসে। এর কয়েকদিন পর ভোরে আমার বোন বাড়ী থেকে পুনরায় পালিয়ে যায়। আমরা মনে করেছিলাম ছেলের সাথে আবারও চলে গেছে। তাই নিশ্চিন্ত ছিলাম।

কিন্তু কয়েকদিন আগে জানতে পারি ছেলে সাথে আমার বোন নাই। তখন আমরা চারিদিকে খোঁজাখুঁজি শুরু করে কোথাও না পেয়ে থানা অভিযোগ দায়ের করি।

এ বিষয়ে অফিসার ইন চার্জ রফিকুল ইসলাম খান বলেন, আমরা অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযান চালিয়ে নিয়ামতপুর উত্তরবাড়ীর উত্তরদিকে গোরস্থানের পার্শ্বের একটি পুকুর পাড়ে পুতে রাখা বস্তাবন্দি গলিত লাশ উদ্ধার করি। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ছেলে, ছেলের বাবা, ছেলের মা ও ছেলের চাচাকে থানা নিয়ে আসি। এ রির্পোট লিখা পর্যন্ত মামলার প্রস্তুতি চলছে। মামলা ও তদন্ত না হওয়া পর্যন্ত বিস্তারিত কিছু বলতে পারছি না।

খবরটি প্রকাশ করেছেঃ দৈনিক সোনালী সংবাদ