পদ্মা পাড়ের লালনশাহ মুক্তমঞ্চ যেনো গরুর গোয়াল

রাজশাহী

রাজশাহী নগরবাসীর প্রধান বিনোদন কেন্দ্র্র পদ্মাপাড়। সেখানেই গড়ে তোলা হয়েছিলো লালনশাহ মুক্ত মঞ্চ। রাজশাহী সিটি করপোরেশনের তত্ত্বাবধানে গড়ে উঠেচিলো এ বিনোদন কেন্দ্রটি। নয়নাভিরাম এ লালনমঞ্চটি সৌন্দর্য্য হারাতে বসেছে।
এই মুক্ত মঞ্চের পূর্বদিকে স্থানীয় লোকজন গরুর গোয়াল তৈরি করেছে স্থানীয় লোকজন। নির্মান করা হয়েছে রাজনৈতিক দলের ওয়ার্ড কার্যালয়। স্থানটিতে বেড়াতে আসা দর্শনার্থীদের কয়েকজন জানিয়েছেন, এসব কারণে বিনোদন কেন্দ্রটির পরিবেশ ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে।

রাজশাহী সিটি করপোরেশন নগরীর দরগাপাড়া এলাকার পদ্মার পাড়ের প্রায় ৫০০ মিটার এলাকায় লালনশাহ মুক্ত মঞ্চ, পিকনিক স্পট, হাঁটার রাস্তাসহ বাচ্চাদের খেলার জন্য মাঠের ব্যবস্থা করেছিলো। একই সাথে স্থানটির সূরক্ষার জন্য বাঁধের ওপরে লোহার তৈরি গ্রিল ও জাল দিয়ে ঘিরে দেয়া হয়েছিলো।

সরেজমিনে দেখা যায়, চার থেকে পাঁচ স্থানের লোহার গ্রিলগুলো সম্পূর্ণ ভেঙে ফেলে চলাচলের রাস্তা করা হয়েছে। এখন সেই ফাঁকগুলো দিয়েই স্থানীয়রা সেখানে গরু-ছাগল নিয়ে যাচ্ছেন।

লালনশাহ মুক্তমঞ্চের পূর্ব দিকে একশ থেকে দুইশ মিটার খোলা মাঠ দখল করে ১৪-১৫টির গরুর গোয়াল করা হয়েছে। পড়ে আছে খড়ের স্তুপ। গরুগুলো দিনের বেলায় ছেড়ে রাখা হয় চরে। ফলে অনেকেই অভিযোগ করে জানিয়েছেন এই গোয়ল থেকে যেমন একদিকে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে তেমনি এই স্থানে বেড়াতে আসা দর্শনার্থীরা গরুগুলোর কারণে রয়েছেন ঝুঁকিতে।

গরুর মালিক স্থানীয় জামাল, টুটুল, শিউলি, বাঙাল, খোকন, জারমান, দোসরা, অবিরণসহ আরও অনেকেই গোয়াল নির্মান করেছেন।

শুক্রবার সেখানে বেড়াতে গিয়েছিলেন নগরীর লক্ষ্মীপুর এলাকার আসমা খাতুন। সঙ্গে স্বামী ও সন্তান। তিনি বলেন, শিশুরা যেখানে খেলা করবে সেখানে গরু চরে বেড়াচ্ছে। চারিদিকে নোঙড়া পড়ে আছে। এ বিষয়ে কর্তৃপক্ষে খুব দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া উচিত।

ছন্দ হাসান নামে আরেক দর্শনার্থী এসেছিলেন স্ত্রীকে নিয়ে পদ্মার পাড়ে সময় কাটাতে। বিনোদন কেন্দ্রে গরুর গোয়াল দেখে তিনি বলেন, এই স্থানে অনেক দর্শনার্থীরা আসেন। এমন একটি জায়গায় গরুর গোয়াল ভাবা যান না। দুর্গন্ধে দর্শনার্থীদের চলাচল করতে পারে না।

অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক জানান, বিগত মেয়রের সময় পদ্মার ধার নানানভাবে সাজানো হয়েছিলো। বাধে ফুটপাত করে নদীর ধার দিয়ে হাঁটার ব্যবস্থা করে দিয়েছিলেন। সম্প্রতি স্থানটিতে গোয়াল ঘর হওয়ায় অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে। তিনিও বিষয়টি নিয়ে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন।

খবরঃ দৈনিক সানশাইন

3 thoughts on “পদ্মা পাড়ের লালনশাহ মুক্তমঞ্চ যেনো গরুর গোয়াল

  1. সেখানে তো ভালো কিছু হয় না। শুধু গান বাজনা আর ডেটিং হয়। এসব জায়গা তো গরু ছাগলের গোয়ালই হবে।

Comments are closed.