পান্নার ছটা নিয়ে পৃথিবীর খুব কাছে আসছে জমজ ধুমকেতু

বিচিত্র

আগামী সোম আর মঙ্গলবার পৃথিবীর খুব কাছে এসে আলতো করে পরশ বুলিয়ে যাবে এক জোড়া ধূমকেতু।  জমজ দেখতে এই পান্না রঙা ধূমকেতু দুটি সবুজের ছটা ছড়িয়ে যাবে পৃথিবীর গায়। তবে নীল পৃথিবী থেকে নিরাপদ দূরত্বেই থাকবে বলে নিশ্চিত করেছেন মহাকাশ বিজ্ঞানীরা। সোমবার প্রথম ধূমকেতুটি দেখা যাবে আর ঠিক ২৬ ঘণ্টা পর আসবে পরেরটি।

নাসার জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা বলছেন, এই জমজ ধূমকেতুর একটি হতে যাচ্ছে স্মরণযোগ্য সময়ের মধ্যে সবচেয়ে কাছাকাছি আসা ধূমকেতুদের একটি । অপেক্ষাকৃত পরেরটিতো মোটে ২.২ মিলিয়ন মাইল দূর থেকে উড়ে যাবে।  ২৫২/পি নামের এটি হতে যাচ্ছে দূরত্বের বিবেচনায় পৃথিবী থেকে তৃতীয় সর্বোচ্চ কাছের ধূমকেতু।

দুটি ধূমকেতুর মধ্যে সোমবার যেটি আসবে সেটির নাম দেওয়া হয়েছে ২৫২/লিনিয়ার। ২০০০ সালের ৭ এপ্রিল ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির লিঙ্কন নিয়ার আর্থ অ্যাস্টেরয়েড রিসার্চ (লিনিয়ার) ৭৫০ ফুট দির্ঘ এই অবজেক্টটি আবিষ্কার করেন। তাদের মতে এটি পৃথিবী থেকে ৩.৩ মিলিয়ন মাইল দূর থেকে ঘুরে যাবে এই ধূমকেতুটি।

আর দ্বিতীয় ধূমকেতুটি আবিষ্কৃত হয় মোটেই মাস দুয়েক আগে। হাওয়াই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যানস্টারস টেলেসকোপ থেকে এবছরের ২২ জানুয়ারি এটির ওপর চোখ পড়ে মহাকাশ বিজ্ঞানীদের। প্রাথমিকভাবে এটিকে উল্কা বলেই মনে করা হচ্ছিলো কিন্তু পরে মেরিল্যান্ড ও লওয়েল এর বিজ্ঞানীরা ডিসকভারি চ্যানেলের টেলেকোপ থেকে দেখতে পান এর আবছা একটা লেজের দিকও রয়েছে।

এই ধূমকেতুটি পৃথিবীর ২.২ মিলিয়ন মাইল দূর থেকে ভেসে যাবে। জানা ইতিহাসের মধ্যে সবচেয়ে কাছে আসে ধূমকেতু ডি/১৭৭০ এল ১ (ল্যাক্সেল) ১৭৭০ সালে আর অন্যটি সি/১৯৮৩ এইচ১ এসেছিলো ১৯৮৩ সালে।

ধূমকেতু ২৫২পি পৃথীবিকে অতিক্রম করে যাবে প্যাসিফিক ডেলাইট টাইম (পিডিটি) হিসেবে ২১ মার্চ সোমবার সকাল ৫ টা ১৪ মিনিটে। বাংলাদেশের সময় যা হবে ওই দিন সন্ধ্যা ৬টা ১৪ মিনিট। আর ২২ মার্চে ধুমকেতুটি আসবে পিডিটি সকাল ৭টা ৩০ মিনিটে। ঢাকার সময় ওই দিন রাত ৯টা ৩০ মিনিটে।

আমাদের জীবদ্দশায় এমন ঘটনা আর হয়তো ঘটবেই না। আর কোনও ধুমকেতু এত কাছে আসবে না। তাই এক নজর দেখে নিতে পেশাদারি টেলিস্কোপে চোখ রাখতে হবে। বিশেষ করে ২২ মার্চ পি/২০১৬ এত কাছে আসবে যে আগামী দেড়শ’ বছরেও এমনটা আর ঘটবে না।

গবেষকরা এই ধূমকেতুর আগমনকে পৃথিবীর জন্য মোটেই হুমকি মনে করছেন না, বরং তারা ভাবছেন এর মধ্য দিয়ে খুব কাছে থেকে ধূমকেতুর গবেষণার একটি সুযোগ তৈরি হবে।

বাংলানিউজ-http://www.banglanews24.com/fullnews/bn/475244.html