পার্কিং ছেড়ে সড়কে যানের জটলা

রাজশাহী

রাজশাহী নগরীর প্রাণকেন্দ্র আলুপট্টি মোড়ে বেলা বাড়ার সাথে সাথে যানজট প্রকট আকার ধারণ করতে শুরু করে। আর এর জন্য দৈনিক বার্তা’র মর্কেট কর্তৃপক্ষ দায়ি বলে অভিযোগ স্থানীয়সহ সড়কটিতে নিয়মিত চলাচলকরীদের।

রবিবার দুপুরে সরেজমিনে আলুপট্টি মোড় এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, রাস্তার ধারে মোটরসাইকেল, অটো, কার-মাইক্রোসহ প্রায় শ’খানেক বিভিন্ন যানের জটলা। এই যানগুলো গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাটির অর্ধেক পর্যন্ত দখর করে পার্কিং করে রাখা হয়েছে। পাশের সুউচ্চ বাণিজ্যিক ভবন দৈনিক বার্তায় যানসংশ্লিষ্টরা কাজে গেছেন। তাই রাস্তা ওপর পার্কিং হয়েছে এই যানগুলো! ভবনটিতে বেশ কয়েকটি ব্যাংক, কোচিং সেন্টার, কর্পোরেট অফিসসহ প্রাইভেট বিশ^বিদ্যালয় রয়েছে। যেখানে প্রতিদিন হাজারো মানুষের আনাগোনা। তাদের যানগুলো প্রতিদিন এভাবে দিনের একটা বড় সময় সড়ক দখল করে রাখা হচ্ছে।

এদিকে শহরের গুরুত্বপূর্ণ মোড়টির সড়ক জুড়ে অবৈধ ভাবে এভাবে যানবাহনগুলো পার্কিং করায় রাস্তাটি সংকীর্ণ হয়ে পড়ে। ফলে ছুটির দিন ছাড়া অফিস চলাকালীন সময় প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৬টা পর্যন্ত যানজট এই সড়কটিতে নিত্য দিনের সঙ্গি। আর এই যানজটের কারণে প্রতিদিনই ঘটছে কোন না কোন ছোট বড় দুর্ঘটনা। মানুষ হারাচ্ছে তার কর্মঘন্টা। নগর হারাচ্ছে তার সৌন্দর্য।

অথচ ভবনটির নিচে আন্ডর গ্রাউন্ডেই রয়েছে যানবাহন রাখার পার্কিং গ্যারেজ। দিনের অধিকাংশ সময় গ্যারেজটি ফাঁকাই পড়ে থাকে। তবে সেই গ্যারেজে হাতে গোনা নির্দিষ্ট কয়েকটি কার-মাইক্রো ছাড়া অন্যদের যানবাহন রাখতে দেয়া হয় না বলে অভিযোগ রয়েছে।

ভবনটিতে থাকা প্রাইভেট বিশ^বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে জানান, তারা ক্লাস করতে কখনো মোটরসাইকেল, কখনো সাইকেল নিয়ে আসে। তবে ভবনটির গ্যারেজ ব্যবহার করতে না দেয়ায় তারা বাধ্য হয়েই রাস্তার ওপরেই তাদের সেই যানগুলো রাখে। এতে করে সড়কটিতে একদিকে যেমন যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে, তেমনি তাদের যানগুলোও চুড়ির ঘটনাও ঘটছে। একই অভিযোগ করে ভবনটিতে থাকা অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্টরা জানান, এই মার্কেটে গ্যারেজ দিনের অধিকাংশ সময় ফাঁকাই পড়ে থাকে, অথচ কর্তৃপক্ষ নির্দিষ্ট কয়েকজন ছাড়া কাওকে সেখানে গাড়ি রাখতে দেয় না। অনুরোধ করলে তারা দুর্ব্যবহার করে। এদিকে বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে সংশ্লিষ্ট কাওকে পাওয়া যায়নি। ভবনে থাকা সিকিউরিটি গার্ডরাও কর্তৃপক্ষের নাম বলতে না নম্বর দিতে চায়নি।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ Daily Sunshine