ফের ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ রাবি শিক্ষার্থীদের

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষার্থী ফিরোজ আনামকে ছুরিকাঘাতে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিসহ তিন দফা দাবিতে ফের ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছেন শিক্ষার্থীরা।

শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তারা মহাসড়ক অবরোধ করেন। পরে দুপুর আড়াইটার দিকে প্রক্টরের সঙ্গে কথা বলে ২৪ তারিখ পর্যন্ত আন্দোলন স্থগিতের ঘোষণা দিয়ে সড়ক অবরোধ তুলে নেন শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো হচ্ছে- ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের নিষিদ্ধ করে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত, ফিরোজ আনামকে ছুরিকাঘাতের ঘটনায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীকে ডিবি তুলে নেয়ার কারণ ব্যাখ্যা ও দুঃখ প্রকাশ করতে হবে।

ru

শিক্ষার্থীরা আগামী ২১ ও ২২ অক্টোবর অনুষ্ঠিতব্য ভর্তি পরীক্ষার জন্য আন্দোলন স্থগিত করা হয়েছে বলে জানান। এছাড়া আগামী ২৪ অক্টোবরের মধ্যে দাবি বাস্তবায়ন না করা হলে ফের আন্দোলনে যাবেন বলেও জানান নিশাত নামে এক শিক্ষার্থী।

এর আগে শনিবার বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে একই দাবিতে মানববন্ধন করেন সাধারণ শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধন শেষে শিক্ষার্থীরা একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। মিছিলটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে অবস্থান নেয়।

একই দাবিতে বেলা ১২টার কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে মানববন্ধন করেন ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। কর্মসূচি থেকে নেতাকর্মীরা সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে বহিরাগতদের উৎপাত বেড়েছে দাবি করে নিরাপত্তা নিশ্চিতে ক্যাম্পাসের প্রবেশ গেটগুলোকে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনার দাবি জানান।

ru

একই সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনের সামনে মানববন্ধন করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত রংপুরের বদরগঞ্জ উপজেলার শিক্ষার্থীদের সংগঠন বদরগঞ্জ উপজেলা সমিতি। কর্মসূচি থেকে তারা ফিরোজের চিকিৎসার ভার বহনের জন্য প্রশাসনের কাছে দাবি করেন।

এর আগে ফিরোজের উপর ছুরিকাঘাতের ঘটনায় নিরাপদ ক্যাম্পাসের দাবিসহ ৫ দফা দাবিতে শুক্রবার রাত ৯টা থেকে আন্দোলন করছিলেন শিক্ষার্থীরা। আন্দোলনের এক পর্যায়ে সহকারী প্রক্টর অধ্যাপক হুমায়ুন কবিরের সঙ্গে বাগবিতণ্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে শিক্ষার্থীদের। এর মধ্যে কিশোর নামে ইতিহাস বিভাগের ৪র্থ বর্ষের এক শিক্ষার্থীকে ডিবি পরিচয়ে তুলে নিয়ে গেলে আন্দোলন জোরদার হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডি, ছাত্র উপদেষ্টাসহ প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তিদের অনুরোধেও সরে যাননি আন্দোলন কারীরা। পরে ভোর ৪টা পর্যন্ত আন্দোলনের পর প্রক্টর অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমানের অনুরোধে শিক্ষার্থীরা ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে অবরোধ থেকে সরে আসেন।

ru

এদিকে ফিরোজ আনামকে ছুরিকাঘাতের ঘটনায় মামলা করা হয়েছে। শুক্রবার রাতে ভুক্তভোগী ফিরোজ বাদী হয়ে অজ্ঞাত চারজনের নামে নগরীরর মতিহার থানায় মামলাটি করেন।

মামলার তদন্তের দায়িত্বে থাকা মতিহার থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আব্দুর রহমান বলেন, রাতে মামলার দায়িত্ব পাওয়ার পর ইতোমধ্যে সন্দেহজনকভাবে রুমেল ও রাকেশ নামে দুইজনকে আটক করা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। সম্পৃক্ততা পেলে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হবে। তবে তদন্তের স্বার্থে আটদের পুরো পরিচয় প্রকাশ করা হচ্ছে না বলে জানান আব্দুর রহমান।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার রাত পৌনে ৮টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ে হবিবুর রহমান হলের মাঠে অর্থনীতি বিভাগের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ফিরোজ আনামকে ছুরিকাঘাত করে দুর্বৃত্তরা। গুরুতর অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি ৮ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ জাগোনিউজ২৪