বগুড়ায় লিচু পেড়ে খাওয়ায় কিশোরকে নির্যাতন বাগানমালিকের দণ্ড

বগুড়া রাজশাহী বিভাগ

বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলায় গাছ থেকে লিচু পাড়ার কারণে কিশোরকে নির্যাতনের দায়ে তছকিন আলী (৫৫) নামের এক ব্যক্তিকে ১৫ দিনের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। গতকাল শনিবার সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুশান্ত কুমার মাহাতো এই সাজা দেন।

কিশোর রাসেল আহমেদকে (১৫) উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। রাসেল শিবগঞ্জ পৌরসভার তেঘরী মহল্লার নুরুল ইসলামের ছেলে। সে শিবগঞ্জ পাইলট উচ্চবিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র। রাসেলকে মারধর থেকে বাঁচাতে গিয়ে তাঁর দাদি ছোবেদা বিবিও আহত হয়েছেন। তাঁকেও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত শুক্রবার সকালে রাসেল ও তার কয়েকজন বন্ধু আঁচলাই নিশানতলা মাঠের একটি লিচুবাগানে যায়। সড়কের পাশে একটি গাছ থেকে কয়েকটি লিচু পাড়ে। এ সময় তছকিন আলীর ছেলে তাকিল আলী তাদের ধাওয়া করেন। অন্যরা পালিয়ে গেলেও রাসেলকে ধরে ফেলেন তিনি। এরপর রশি দিয়ে রাসেলের দুই হাত লিচুগাছের সঙ্গে বেঁধে লাঠি দিয়ে মারধর করেন। বিকেলে রাসেলের পরিবার বিষয়টি জানতে পেরে সেখানে যায়। তাদের সামনে বাগানমালিক তছকিন আলী আবারও রাসেলকে পেটাতে থাকেন। রাসেলের দাদা জোব্বার আলী ও দাদি ছোবেদা বিবি বাধা দিতে গেলে তাঁদেরও মারধর করা হয়। পরে এলাকার লোকজন তাঁদের উদ্ধার করে নিয়ে আসেন।

শিবগঞ্জ থানার পরিদর্শক (অপারেশন) জাহিদ হোসেন বলেন, নির্যাতন করার অভিযোগ পেয়ে পুলিশ গতকাল দুপুরে বাগানমালিক তছকিন আলীকে আটক করে নিয়ে আসে। কিন্তু তাঁর ছেলে পালিয়ে যান। পরে তছকিন আলীকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে হাজির করা হয়।

খবরঃ প্রথম-আলো