বঙ্গবন্ধু রেল সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ১৪ মার্চ

জাতীয়

যমুনা নদীর উপর দ্বিতীয় বঙ্গবন্ধু ডুয়েল গেজ ডাবল লাইন রেল সেতু নির্মাণের জন্য ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর জন্য আগামী ১৪ মার্চ সম্ভাব্য তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন রেলপথ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।

বুধবার (৫ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর রেল ভবনের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলন তিনি এ কথা জানান।

সুজন বলেন, ‘এই দিনে প্রধানমন্ত্রী নিজে যমুনা নদীর পাড়ে গিয়ে এই রেল সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করতে পারেন অথবা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমেও হতে পারে। তবে এখনো তা ফাইনাল হয়নি। সকল কাজ কমপ্লিট হয়ে গেছে। জাপানি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান বঙ্গবন্ধু সেতুর কাজ করবেন।’

এ সময় ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের আরও দুটি ট্রেন চালানোর কথা ভাবছেন বলে জানান মন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘রাজশাহীর মানুষের চাহিদার কথা বিবেচনায় রেখে রাজশাহী থেকে শিয়ালদা পর্যন্ত আমরা চাচ্ছি, কিন্তু ভারত চাচ্ছে, রাজশাহী থেকে থেকে হাওড়া পর্যন্ত। তবে আমার গুরুত্ব দিচ্ছি শিয়ালদা পর্যন্ত।’

মন্ত্রী বলেন, ‘এর পাশাপাশি চিলাহাটি হলদিবাড়ি সাত কিলোমিটার রেললাইন চালু হলে। এই বছরেই আমরা ঢাকা থেকে শিলিগুড়ি ট্রেন চালু করতে পারব। এই বিষয়ে বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাই কমিশনার রীভা গাঙ্গুলীও আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সুজন বলেন, ‘করোনাভাইরাস নিয়ে বাংলাদেশে সেই ধরনের এলিগেশন এখনো পাওয়া যায়নি। চীন থেকে আমাদের দেশে বেশিরভাগ এয়ারপোর্টে হয়ে আসছে সেক্ষেত্রে এয়ারপোর্টে এ ধরনের ব্যবস্থা বেশি নেয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের রেলের যেসব প্রকল্পে চীনারা কাজ করেন। আমরা আমাদের অফিস থেকে নির্দেশনা দিয়ে দিয়েছি, যারা চীন থেকে আসছেন তাদেরকে দু’সপ্তাহ পর্যবেক্ষণে রেখে তারপরে তাদের কাজে যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হচ্ছে। তাছাড়া চীনারা যেসব প্রকল্পের এলাকায় কাজ করছে সেসব এলাকার হাসপাতালে আমরা চিঠি দিয়ে দিয়েছি তাদের নজরে রাখতে।’

ঢাকা-কলকাতার মধ্যে চলাচলরত ‘মৈত্রী এক্সপ্রেস’ এবং খুলনা-কলকাতার মধ্যে চলাচলরত ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’ ট্রেনের ট্রিপ বাড়ানোর বিষয়ে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ জাগোনিউজ২৪