বনলতায় বাধ্যতামূলক খাবারে বাদশাহর আপত্তি

রাজশাহী

রাজশাহী-ঢাকা রুটের একমাত্র বিরতিহীন ট্রেন বনলতা এক্সপ্রেসে যাত্রীদের জন্য বাধ্যতামূলক করা হয়েছে খাবার। ১৫০ টাকার খাবারের মূল্য ধরে তা যোগ করা হয়েছে টিকিটের মূল্যের সাথে।

গত ২৫ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সে উদ্বোধনের পর ২৭ এপ্রিল বাণিজ্যিক যাত্রা শুরু করে বনলতা এক্সপ্রেস। তবে শুরু থেকেই খাবারের মান ও মূল্য নিয়ে অসন্তোষ জানিয়ে আসছেন ভ্রমণকারীরা। এবার আপত্তি তুললেন রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা। খাবার বাধ্যতামূলক না রাখতে তিনি আহ্বান জানিয়েছেন রেল মন্ত্রণালয়কে।

রোববার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে ১৪ দলের শরিক ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, বিরতিহীন বনলতা এক্সপ্রেস রাজশাহীবাসীর বহুল প্রত্যাশিত একটি ট্রেন। নির্বাচনের আগে আমার ৪৪ দফার অন্যতম ছিল এই ট্রেন চালুর প্রতিশ্রুতি। ট্রেনটি চালু করার জন্য রাজশাহীর মানুষ প্রধানমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদও জানিয়েছেন।

ট্রেনে দেড়শ টাকার বাধ্যতামূলক খাবারের বিষয়টিকে অপ্রয়োজনীয় উল্লেখ করে বাদশা বলেন, এই সিদ্ধান্তের কারণে অনেকেই ট্রেনটির ব্যাপারে উৎসাহ হারিয়েছেন বলে জানতে পেরেছি। কাজেই যাত্রীদের স্বার্থে সিদ্ধান্তটি পুনর্বিবেচনা করা জরুরি।

রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বিক্রির জন্য প্রতিদিন বনলতা এক্সপ্রেসের শোভন চেয়ারের ৭৭৯টি এবং এসি (স্নিগ্ধা) চেয়ারের ১৬০টি টিকিট ছাড়া হয়েছে। এর মধ্যে ১৫০ টাকা খাবার মূল্য যোগ করে শোভন চেয়ার ৫২৫ টাকা এবং এসি (স্নিগ্ধা) চেয়ারের টিকিটের মূল্য ধরা হয়েছে ৮৭৫ টাকা করে।

এই ট্রেনে ভ্রমণকারীদের একটি করে কেক, মিষ্টি, সবজি রোল, সিঙ্গাড়া এবং ৫০০ মিলিলিটারের পানির বোতল সরবরাহ করছে রেলওয়ের ক্যাটারিং অ্যান্ড ট্যুরিজম সার্ভিসেস (বিআরসিটিএস)। শুরু থেকেই খাবার মান ও দাম নিয়ে সমালোচনা চলছে।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ জাগোনিউজ২৪