বর্ষা আসছে, সঙ্গে বন্যা

জাতীয়

জুন মাসের প্রথমার্ধের মধ্যে সারাদেশে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু তথা বর্ষা বিস্তার লাভ করার আভাস দিয়ে আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, মৌসুমি বৃষ্টিপাতের কারণে দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চল এবং দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে স্বল্পমেয়াদী বন্যাও হতে পারে।

আবহাওয়ার দীর্ঘমেয়াদী পূর্বাভাস দেওয়ার জন্য বিশেষজ্ঞ কমিটির নিয়মিত বৈঠক শেষে এমন পূর্বাভাস এসেছে। গত ৩০ (বৃহস্পতিবার) মে আবহাওয়া অধিদপ্তরের ঝড় সতর্কীকরণ কেন্দ্রে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক সামছুদ্দিন আহমেদ জানান, জুন মাসের প্রথমার্ধের মধ্যে সারাদেশে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু (বর্ষা) বিস্তার লাভ করতে পারে। জুন মাসে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা আছে। এ মাসে বঙ্গোপসাগরে ১-২টি মৌসুমি নিম্নচাপ সৃষ্টি হতে পারে।

দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ুর প্রভাবের কারণে বাংলাদেশে বর্ষাকালে (আষাঢ়-শ্রাবণ) প্রচুর পরিমাণে বৃষ্টিপাত হয়।

আবহাওয়া অফিসের নদ-নদীর অবস্থায় বলা হয়, জুন মাসে মৌসুমি বৃষ্টিপাতের কারণে দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চল এবং দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের কতিপয় স্থানে স্বল্পমেয়াদী বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে। তবে দেশের অন্যান্য স্থানে নদ-নদীর স্বাভাবিক প্রবাহ বিরাজ থাকবে।

আর আগামী কয়েক দিন বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বৃদ্ধি পাবে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান। শনিবার (০১ জুন) সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ৭২ ঘণ্টার আবহাওয়ার অবস্থায় বলা হয়, এই সময়ে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বৃদ্ধি পেতে পারে।

২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়, ঢাকা, রংপুর, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং খুলনা, বরিশাল ও রাজশাহী বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকা বা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা সামান্য এবং রাতের তাপমাত্রা ১-২ ডিগ্রি সেলসিয়াস হ্রাস পেতে পারে।

সকাল ৬টা পর্যন্ত ময়মনসিংহে সর্বোচ্চ ৭২ মিলিমিটার ছাড়াও ঢাকায় ৪ মিলিমিটার, সিলেটে ৩ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

অন্যদিকে, মে মাসে সারাদেশে স্বাভাবিক অপেক্ষা ২৫ দশমিক ৫ শতাংশ কম বৃষ্টি হয়েছে। তবে রংপুর, সিলেট ও ময়মনসিংহ বিভাগে স্বাভাবিক বৃষ্টি হয়েছে।

বছরের দুযোগপূর্ণ সময় পার করেছে মে মাস। এ মাসে একটি ঘূর্ণিঝড় অতিক্রম করেছে দেশের ওপর দিয়ে। মে মাসে ঘূর্ণিঝড় ‘ফণী’ অতি প্রবলরূপে ভারতের উড়িষ্যা উপকূল অতিক্রম করে। ৪ মে সকালে তা স্বাভাবিক ঘূর্ণিঝড় আকারে ফরিদপুর-ঢাকা অঞ্চলে অবস্থান করে। ওই দিন দুপুর ১২টা নাগাদ পাবনা, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ এলাকায় গভীর স্থল নিম্নচাপ আকারে অবস্থান নেয়। পরে ধীরে ধীরে দুর্বল হয়ে পড়ে। এসময় সারা দেশে ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টিপাত হয়েছে।

এছাড়া মে মাসে দেশের ওপর দিয়ে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ বয়ে যায়। ১০ ও ১১ মে রাজশাহীতে দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি রেকর্ড করা হয় বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর