বহুরুপী ভিক্ষুকের প্রতারণা; মাসে আয় ৪০০০০ টাকা! (ভিডিও)

শ্রেণিহীন

পাঠক আজকে আমরা আপনাদেরকে জানাবো অসাধারণ এক ব্যক্তির কথা। মাসে তার আয় ৪০০০০ টাকা। লক্ষ লক্ষ টাকা ব্যয় করে বোনদের বিয়ে দিয়েছেন। মাসে অন্তত্য একবার বিদেশে যান। বেনসন ছাড়া অন্য কোন সিগারেট খান না। অথচ পেশায় তিনি একজন ভিক্ষুক। কি পাঠক চমকে উঠলেন তো? আজকে এই বহুরুপী ভিক্ষুককে নিয়ে আমাদের অায়োজন।
রাজধানীর রাজপথে কখনো তাকে দেখা যায় বিকলঙ্গের মত হাটুতে ভর দিয়ে হামাগুড়ি দিতে। আবার কখনো দেখা যায় ঘাড়ের উপর একটি পা তুলে দিয়ে পথচারিদের কাছে পৌঁছাতে। লক্ষ্য একটি মানুষের সহানুভূতি অর্জন। আসলে এ সবই কিন্তু প্রতারণার অংশ। এর কোনটিই তার প্রকৃত চেহারা নয়।
কেন এই পথ বেছে নিলেন রাজু নামের এই ছেলেটি। কিভাবে অর্জন করলেন মানুষ ঠকানোর এই দক্ষতা? অনেক চেষ্টার পর তার মুখ দিয়েই বের করা গেল সেই কথা।
তাকে জিজ্ঞাসা করা হয় এই ভিক্ষার বিভিন্ন কৌশল আপনি শিখলেন কোথা থেকে? জবাবে সে জানায়, এই ভিক্ষা বিদ্যা ভারতের মাদ্রাজ থেকে শিখে এসেছি এবং এই ভিক্ষা করেই ৫ বোন বিয়ে দিয়েছি। ইন্ডিয়ায় প্রতি মাসে ৩ বার যাই এই বিভিন্ন জায়গায় ভিক্ষা করি।
বিদেশের মাটিতে কেবল ভিক্ষাই নয় প্রতারণার জাল বিস্তার করে ভারত থেকেও সে আদায় করে আনে প্রতিবন্ধী ভাতা। সে টাকা আনতে প্রতি ৩ মাসে অন্তত্ ১ বার তিনি ভারতে যান। সে জানায় ভারতে তার প্রতিবন্ধী ভাতা খাতায় নাম আছে। এবং প্রতি ভাতায় সে ২০০০০ টাকা করে পায়।
প্রতারণা হলেও এই পথে অর্জন কিন্তু তার একেবারেই কম নয়। বরং অনেকের জন্য তা রীতিমত ইর্ষনীয়। তাকে জিজ্ঞাসা করা হয় ইনকাম হয় কেমন তোমার? জবাবে সে জানায়, ইনকাম ভালই হয়। এতি মাসে ৩০০০০-৪০০০০ টাকা পাই।
রাজুর বাড়ি বগুড়ায়। প্রতিবন্ধী সেজে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের চোখে পর্যন্ত ধুলা দিয়েছেন। আদায় করেছেন চিকিৎসা ভাতাসহ বগুড়ায় ৫০ শতাংশ জমি।
কি কি কৌশলে চলে ভিক্ষাবৃত্তি, কত ভাবে ভাঙ্গতে পারেন নিজের শরীরকে জানতে চাইলে সব মহিমায় নিজেকে মেলে ধরেন রাজু।
গত ৮ বছর ধরে দেশ-বিদেশে চলছে রাজুর এই প্রতারণা ভিত্তিক ভিক্ষাবৃত্তি। তার মতে এরকম আরো অনেক ভিক্ষুক প্রতারক রয়েছে দেশ জুড়ে।
বহুরুপী ভিক্ষুকের প্রতারণার ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন