বাউয়েটে নানা আয়োজনে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী এবং স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস-২০২১ উদযাপন

ক্যাম্পাসের খবর নাটোর রাজশাহী বিভাগ
বাউয়েট, কাদিরাবাদ, নাটোরঃ গত ২৬ মার্চ ২০২১ তারিখে বাংলাদেশ আর্মি ইউনিভার্সিটি অব ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি (বাউয়েট) ক্যাম্পাসে নানা আয়োজনে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী এবং স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস-২০২১ উদযাপন উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হয়।

সকাল সাড়ে আটটায় জাতীয় ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলন ও সম্মান প্রদর্শন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ মোস্তফা কামাল এবং কোষাধ্যক্ষ কর্ণেল (অব.) মোহাম্মাদ হামিদুল হক, পিএসসি।

দ্বিতীয় পর্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কাইলাইট হলে সকাল নয়টায় স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী এবং স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস-২০২১ উদযাপন উপলক্ষে এক আলোচনা সভা ও স্বাধীনতার উপর নির্মিত প্রামাণ্য ভিডিও চিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. মোস্তফা কামাল।

প্রধান অতিথি বলেন, ‘ লক্ষ শহীদরে রক্তের বিনিময়ে আমরা পেয়েছি এ স্বাধীনতা। বাঙালী জাতির জীবনে এটা সর্বশ্রেষ্ঠ অর্জন। আমি গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছি স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। যার নেতৃত্বে আমরা পেয়েছি একটি সার্বভৌম রাষ্ট্র। ’

সহকারী গ্রন্থাগারিক মোঃ শহীদুল ইসলামের সঞ্চালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে আলোচনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ কর্ণেল (অব.) মোহাম্মাদ হামিদুল হক, পিএসসি, রেজিস্ট্রার লে: কর্ণেল (অব.) শেখ মোঃ শামীম হোসেন, ব্যবসায় অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মো. শাহ আলম, গণিত বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. আব্দুল্লাহ আল মামুন, সিএসই বিভাগের প্রভাষক রাখী রাণী পাল, কর্মচারী আবদুল সাত্তার, আবদুল হান্নান এবং হারুন অর রশিদ। এছাড়া জুম প্ল্যাটফরমের মাধ্যমে অনলাইনে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখে সিএসই বিভাগের শিক্ষার্থী আরাফা ইয়াফি এবং ব্যবসায় প্রশাসনের শিক্ষার্থী মেহেদি হাসান। অনুষ্ঠানের শেষে বিগত সালের বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় পুরস্কারপ্রাপ্ত বিজয়ী ছাত্র-ছাত্রীদের নাম ঘোষণা করেন ছাত্র কল্যাণ উপদেষ্টা ও সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের প্রধান সহকারী অধ্যাপক মো. আল আমিন।

স্বাস্থ্য বিধি মেনে ও সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের ডিনগণ, বিভাগীয় প্রধানগণ, প্রক্টর, ছাত্র কল্যাণ উপদেষ্টা, শিক্ষকমন্ডলী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ।

এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে জুমার নামাজের পর জাতির শান্তি, সমৃদ্ধি ও অগ্রগতি, মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের আত্মার শান্তি ও মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ দোয়া-মোনাজাতের আয়োজন করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পোসের গুরুত্বপূর্ণ সড়কে ব্যানার, ফেস্টুন, রঙিন কাপড়ের পতাকা দিয়ে স¦শোভিত করা হয় এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রবেশদ্বারে রাতে আলোকসজ্জার ব্যবস্থা করা হয়।