বাগাতিপাড়ায় শারীরিক নির্যাতনে গৃহবধূর মৃত্যু

নাটোর রাজশাহী বিভাগ

নাটোরের বাগাতিপাড়ায় স্বপ্না বেগম (২০) নামে এক গৃহবধূকে শারীরিক নির্যাতনে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। রোববার দুপুর ২টার দিকে বাগাতিপাড়া উপজেলার ক্ষিদ্র মালঞ্চি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার পর থেকে স্বামী, শ্বশুর-শাশুড়ি পলাতক রয়েছেন। নিহতের পরিবারের দাবি, স্বপ্নাকে শারীরিক নির্যাতন করে হত্যার পর রশি দিয়ে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে।

এলাকাবাসী ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, বাগাতিপাড়া উপজেলার ক্ষিদ্র মালঞ্চি গ্রামের হুসেন আহম্মেদের ছেলে রুবেলের সঙ্গে দুই বছর আগে একই উপজেলার বাজিতপুর গ্রামের মতলেব খন্দকারের মেয়ে স্বপ্নার বিয়ে হয়।

বিয়ের সময় এক লাখ টাকা যৌতুক দাবি করা হলে বিয়ের দিন রুবেলকে ৫০ হাজার টাকা দেওয়া হয়। বিয়ের কিছুদিন পর থেকে দাবিকৃত যৌতুকের বাকি ৫০ হাজার টাকার জন্য চাপ দেয়। আর এ টাকা এনে দিতে অস্বীকার করলে স্বপ্নাকে মাঝে মধ্যেই শারীরিক নির্যাতন করা হতো।

নিহতের বাবা মতলেব খন্দকার অভিযোগ করে জানান, দুপুরে যৌতুকের টাকা নিয়ে ঝগড়া-বিবাদ শুরু হলে জামাই রুবেলসহ তার পরিবারের লোকজন স্বপ্নাকে বেধড়ক মারপিট করেন। এতে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান।

ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে গলায় রশি বেঁধে ঘরের তীরে সঙ্গে ঝুলিয়ে রেখে স্বপ্না আত্মহত্যা করেছে বলে প্রচার করা হয়। মেয়ের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে নাটোর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। বাগাতিপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি)আমিনুর রহমান জানান, গৃহবধূকে হত্যার কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। প্রাথমিকভাবে থানায় একটি ইউডি মামলা রুজু করা হয়েছে। তবে, বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।