বাস-ট্রাকের চাপায় রাজশাহী কলেজ ছাত্রের হাত বিছিন্ন

রাজশাহী

রাজশাহীতে বাস-ট্রাকের মাঝে চাপা পড়ে ২৫ বছরের এক যুবকের ডান হাত বিছিন্ন হয়ে গেছে। রামেক হাসপাতালের জরুরী বিভাগ ও তার বন্ধুদের দেয়া তথ্য মতে, আহত যুবক বগুড়ার নন্দিগ্রাম এলাকার শাহিন আলমের ছেলে ফিরোজ সরদার। তিনি রাজশাহী কলেজের সমাজকর্ম বিভাগের মাস্টার্সের পরীক্ষার্থী। শুক্রবার সন্ধ্যা ছয়টার পর নগরীর কাটাখালি পৌরসভার সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

কাটাখালি থানার ইনচার্জ জানিয়েছেন, ঘটনাস্থল থেকে হাতটি উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালে পাঠান হয়েছে। তবে তারা নিশ্চিত নয় কোথায় ও কিভাবে হাতটি কাটা পড়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নাটোরের দিক থেকে একটি যাত্রীবাহী বাস রাজশাহীতে আসছিল। এসময় রাজশাহী থেকে একটি ট্রাক নাটোরের দিকে যাচ্ছিল। এসময় কাটাখালি পৌরসভার কাছে বাস ও ট্রাক পাশাপাশি যাওয়ার সময় চাপা লাগে। এতে বাসে থাকা ফিরোজের হাতের কনুই থেকে বিছিন্ন হয়ে যায়। আহত ফিরোজের বন্ধু বিরেস্বর চন্দ্র জানান, ফিরোজ শুক্রবার বগুড়ায় অনুষ্ঠিত প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা শেষে রাজশাহীতে ফিরে আসছিলো। এসময় পথিমধ্যে তার সাথে এই দুর্ঘটনা ঘটে। তিনি আরো জানায়, ফিরোজ রাজশাহী কলেজের সমাজকর্ম বিভাগ থেকে এবার মাস্টার্স পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে।

তিনি বলেন, রাত ১০টার দিকে রামেকের অপারেশন থিয়েটার থেকে বের করে তাকে ওয়ার্ডে দেয়া হয়। এখন পর্যন্ত তাকে আট ব্যাগ রক্ত দেয়া হয়েছে। তার অবস্থা গুরুতর বলে জানান তিনি।

কাটাখালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মন বলেন, এবিষয়ে আমরা কোন অভিযোগ পাইনি। তাই মামলা করা হয়নি। তবে স্থানীয়দের দেয়া তথ্য আমরা কাটাখালি সড়কের ধার থেকে একটি কনুই থেকে কাটা হাত উদ্ধার করি। পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (রামেক) এমন কোন আহত ভর্তি হয়েছে কী না খোঁজ নিলে তারা নিশ্চিত করলে আমরা কাটা পড়া হাতটি রামেকে পাঠিয়ে দিয়েছি।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ Daily Sunshine