বিজ্ঞাপন নিয়ে সমালোচনার জবাব দিলেন সানি লিওন

বিনোদন

‘সানি লিওনের বিজ্ঞাপনের কারণে ভারতে ধর্ষণের প্রবণতা বাড়ছে’—সিপিআই নেতা অতুল কুমার অঞ্জনের এমন বক্তব্যের জবাব দিয়েছেন সানি লিওন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় টুইটারে নিজের অ্যাকাউন্টে সমালোচনার জবাব দেন সানি।

টুইটে সানি লেখেন, ‘খুবই দুঃখজনক, যখন ক্ষমতায় থাকা মানুষরা আমাকে নিয়ে আলোচনা করে তাঁদের মূল্যবান সময় ও শ্রম নষ্ট করেন। বরং তাঁদের যে কাজের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে, সেদিকেই মনোযোগটা বেশি থাকা উচিত।’

গত মঙ্গলবার উত্তরপ্রদেশের গাজীপুর জেলায় এক সমাবেশে কমিউনিস্ট পার্টি অব ইন্ডিয়া (সিপিআই) নেতা অতুল কুমার দাবি করেন, সানি লিওন অভিনীত কনডমের বিজ্ঞাপনগুলোর মাধ্যমে মানুষের সংবেদনশীলতা নষ্ট হচ্ছে এবং এসব বিজ্ঞাপন যৌন উত্তেজনা সৃষ্টি করছে। আর সে কারণেই কখনো ভারতে ধর্ষণের প্রবণতা বন্ধ করা সম্ভব নয়।

অতুল কুমারের বক্তব্যের ভিডিওটি বিভিন্ন গণমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর নিজের বক্তব্যের জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন অতুল। বার্তা সংস্থা এএনআইকে অতুল বলেছেন, ‘পর্নোগ্রাফি এবং সানি লিওনকে যাঁরা সমর্থন করেন, তাঁরা আমার বক্তব্যের বিরোধিতা করেছেন। নিজের বক্তব্যের জন্য আমি দুঃখ প্রকাশ করছি। কিন্তু ব্যক্তিগতভাবে আমি এ ধরনের বিজ্ঞাপন প্রচারের বিষয়টি কখনোই সমর্থন করি না।’

অতুল বলেন, ‘সানি লিওনের বিজ্ঞাপনগুলো কুরুচিপূর্ণ। আমি কনডমের বিজ্ঞাপন প্রচারের বিরোধী নই। কিন্তু সানি লিওন যেসব বিজ্ঞাপনে অভিনয় করেন, সেগুলোতে যে ধরনের ভাষা বা অঙ্গভঙ্গি ব্যবহার করা হয়, আমি তার বিরোধিতা করেছি।’

এদিকে, দিল্লি কমিশন অব উইমেনের সাবেক চেয়ারপারসন বরখা সিং সরকারের কাছে সানি লিওন অভিনীত কনডমের বিজ্ঞাপনের প্রচার বন্ধের আবেদন জানিয়েছেন। বার্তা সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, সানি লিওন অভিনীত কনডমের বিজ্ঞাপনগুলোকে ব্যাভিচারী উল্লেখ করে সেগুলোর প্রচার বন্ধের জন্য সরকারের কাছে আবেদন জানিয়েছেন বরখা সিং।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত কানাডিয়ান অভিনেত্রী সানি লিওন একজন পর্নোস্টার ছিলেন। ‘বিগ বস’ টিভি রিয়েলিটি শোর মাধ্যমে প্রথম ভারতীয় টেলিভিশনে যাত্রা শুরু করেন। ২০১২ সালে পূজা ভাট পরিচালিত ‘জিসম-২’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে যাত্রা শুরু করেন ৩৪ বছর বয়সী সানি লিওন।

এ বছর সানি লিওনের দুটি ছবি মুক্তি পেয়েছে ‘এক পেহেলি লীলা’ ও ‘কুচ কুচ লোচা হ্যায়’। সানি অভিনীত আরেকটি ছবি ‘মাস্তিজাদে’ সম্প্রতি সেন্সর সার্টিফিকেট পেয়েছে।