বৃষ্টির দেখা নেই, গরমে অতিষ্ঠ রাজশাহীর জনজীবন

রাজশাহী

আষাঢ় এসেছে আরও পাঁচ দিন আগে। তবে আসেনি কাক্সিক্ষত বৃষ্টি। মাঝে-মধ্যে আকাশে মেঘ ভর করলেও বৃষ্টি হচ্ছে না উত্তরের এই শহরে।

সোমবার (১৯ জুন) সকাল থেকে প্রচন্ড রোদ। আর বিকেলের পর থেকে ভ্যাপসা গরম। তাই খরতাপের বৈশাখ-জৈষ্ঠ পেরিয়ে আষাঢ়ের এই গুমোট আবহাওয়ায় দুঃসহ জীবন যাপন করছে রাজশাহীর মানুষ।

তবে ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে সোমবার বিকেলের পর বৃষ্টির সুখবর দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

এদিকে, রমজান মাসের আগ থেকেই বৈরী আবহাওয়া বিরাজ করছে রাজশাহীতে। টানা তাপপ্রবাহে তাই রোজাদার কর্মজীবী মানুষ চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। এর ওপর দিনের বেশিরভাগ সময় মহানগরীর অধিকাংশ এলাকায় লোডশেডিং থাকছে। ফলে ভোগান্তিতে সাধারণ মানুষের জীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। তাপমাত্রা ও গরম অব্যাহত থাকায় জ্বর, সর্দি-কাশিসহ বিভিন্ন উপসর্গে আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছেই। পাশাপাশি উচ্চ রক্তচাপে আক্রান্তদের দুর্ভোগ বেড়েছে এ তীব্র গরমে।

রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আশরাফুল আলম বলেন, রাজশাহীর উপর দিয়ে তাপপ্রবাহ অব্যাহত রয়েছে। দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৫ থেকে ৩৭ ডিগ্রির মধ্যেই ওঠানামা করছে। আষাঢ় শুরু হলেও রাজশাহীতে কাক্সিক্ষত বৃষ্টিপাত হচ্ছে না। এর আগে গত ১৭ জুন মহানগরীতে হালকা বৃষ্টি হয়েছে। ওই দিন রাতে ৬ দশমিক ৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। এর পর আর বৃষ্টি হয়নি। তবে সোমবার বিকেলের পর রাজশাহীতে বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানান তিনি।

আশরাফুল আলম বলেন, সোমবার বেলা ১১টায় রাজশাহীর সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ২৯ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে এই তাপমাত্রা আরও বাড়বে। কারণ দিনের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা সাধারণত রেকর্ড করা হয় বেলা ৩টায়।

এর আগে সকালে রাজশাহীর সর্বন্মি তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ২৬ দশমিক ৮ডিগ্রি সেলসিয়াস। সকাল ৬টায় বাতাসের আদ্রতা ছিল ৯৬ শতাংশ। আর বেলা ১১টায় ৮৩ শতাংশ ছিল বলেও জানান রাজশাহী আবহাওয়া অফিসের এই ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

খবরঃ বাংলানিউজ

30 thoughts on “বৃষ্টির দেখা নেই, গরমে অতিষ্ঠ রাজশাহীর জনজীবন

Comments are closed.