ভাইরাস ঠেকাতে সর্বোচ্চ সতর্ক রাজশাহী

রাজশাহী

করোনাভাইরাস ঠেকাতে সর্বোচ্চ সতর্ক রাজশাহী। এ নিয়ে সিটি করপোরেশনসহ প্রশাসনের পক্ষ থেকে নানা পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। যার অংশ হিসেবে রাজশাহী থেকে ঢাকা রুটের বাস বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। বন্ধ হয়েছে রাজশাহীর সকল বিনোদন কেন্দ্রসহ সভা-সমাবেশ। জেলা, উপজেলা পর্যায় ছাড়াও রাজশাহী নগরের ৩০টি ওয়ার্ডে করা হয়েছে কমিটি। রাজশাহীতে খোলা হয়েছে তিনটি হটলাইন। ভাইরাস বিস্তার ঠেকাতে সকলের সহযোগিতা চেয়েছেন রাজশাহী সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে করণীয় নির্ধারণ বিষয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগের সিটি কর্পোরেশন পর্যায়ে জরুরী বৈঠক করা হয় বৃহস্পতিবার দুপুরে। নগর ভবনে আয়োজিত সভায় রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের সভাপতিত্ব করেন।

সভায় সম্প্রতি যারা বিদেশ থেকে এসেছেন এবং তাদের সংস্পর্শে যারা এসেছেন, তাদের ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতকরণ, জনসমাগম, সভা, মিছিল, মিটিং, সেমিনার, রাজনৈতিক ও সামাজিক অনুষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা সিদ্ধান্ত হয়।

এছাড়াও কোন প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন মোড় ও চায়ের স্টলে আড্ডা, বিনোদনকেন্দ্রে ঘোরাঘুরি ও কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠান আয়োজন থেকে নাগরিকদের বিরত রাখা, নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম বৃদ্ধির রোধে বাজার মনিটরিংয়ের ব্যবস্থা গ্রহণসহ বিভিন্ন বিষয়ে সভায় আলোচনা ও সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এছাড়াও সভায় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের ৩০টি ওয়ার্ডের কাউন্সিলরকে আহ্বায়ক করে ওয়ার্ড কমিটি গঠন করা হয়।
অপরদিকে, জেলা প্রশাসন করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব মোকাবেলায় জেলার সকল বিনোদন কেন্দ্র, পার্ক, পর্যটন স্পট কর্তৃপক্ষকে তাদের নিজ নিয়ন্ত্রনাধীন কেন্দ্র বন্ধ রাখার নির্দেশ জারি করে। এছাড়াও জনসমাবেশ যা করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি সৃষ্টি করে তা বন্ধ রাখার নিমিত্তে জরুরিভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বিশেষভাবে নির্দেশনা দেন জেলা প্রশাসক।

এদিকে, করোনাভাইরাস ঠেকাতে রাজশাহী-ঢাকা রুটের বাস বন্ধের ঘোষণা দেয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে ঢাকা রুটের বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। যাতে ঢাকা থেকে কেউ রাজশাহী যেতে না পারে। তবে আন্ত;বিভাগীয় রুটে সিমিত আকারে বাস চলাচল করছে।

অপরদিকে, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সকলের সহযোগিতা কামনা করে রাজশাহী নগরবাসীর প্রতি বিশেষ আহ্বান জানিয়েছেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিশেষ বিবৃতিতে মেয়র লিটন বলেন, নোভেল করোনাভাইরাস পুরো বিশ্বের কাছে এক আতঙ্কের নাম। ভাইরাসটি বাংলাদেশেও ছড়িয়ে পড়েছে। করোনা ভাইরাস এক ধরণের সংক্রামক ভাইরাস। আক্রান্ত ব্যক্তির হাঁচি-কাশির মাধ্যমে, আক্রান্ত ব্যক্তিকে স্পর্শ করলে এমনকি পশু/পাখির মাধ্যমে এ ভাইরাস ছড়াতে পারে।

করোনা সংক্রমণ থেকে বাঁচতে কিছু বিষয় আবশ্যিকভাবে মেনে চলার জন্য বিশেষভাবে আহ্বান জানিয়ে মেয়র লিটন বলেন, সম্প্রতি যারা বিদেশ থেকে এসেছেন এবং তাদের সংস্পর্শে যারা এসেছেন, তারা স্বেচ্ছায় ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকুন। সম্প্রতি বিদেশ থেকে কেউ আসলে দ্রুত স্থানীয় ওয়ার্ড কার্যালয়ে তথ্য প্রদান করুন।

জনসমাগমস্থলে গমন এবং সভা, মিছিল, মিটিং, সেমিনার, রাজনৈতিক ও সামাজিক অনুষ্ঠান আয়োজন ও অংশগ্রহণ থেকে বিরত থাকুন। বিশেষ প্রয়োজন ব্যতীত ঘর থেকে বের হবেন না। বিনোদনকেন্দ্র ও কমিউনিটি সেন্টারে যাবেন না। কোন প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন মোড় ও চায়ের স্টলে আড্ডা দেয়া থেকে বিরত থাকুন। গণপরিবহনে যাতায়াত করা থেকে বিরত থাকুন। সর্দি-কাশিতে আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা থেকে বিরত থাকুন।

জরুরি প্রয়োজন ব্যতীত অফিস-আদালত স্বশরীরে হাজির হয়ে সেবা গ্রহণ করা থেকে বিরত থাকুন। জরুরি প্রয়োজন ব্যতীত যে কোন ধরনের ভ্রমণ থেকে বিরত থাকুন। অসুস্থ ও বিদেশ ফেরত এবং বয়স্ক ব্যক্তি মসজিদে না গিয়ে বাড়িতে নামাজ আদায় করুন। করমর্দন ও কোলাকুলি করা থেকে বিরত থাকুন। যেকোন ব্যক্তি হতে ৩ ফুট দূরত্ব বজায় রাখুন।

নিয়মিত সাবান/হ্যান্ডওয়াশ দিয়ে হাত পরিষ্কার করুন। হাত না ধুয়ে নিজের মুখমন্ডল স্পর্শ করবেন না। এই বিশেষ অবস্থায় নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য/পণ্যের মূল্য অহেতুক বৃদ্ধি করা থেকে বিরত থাকুন। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সরকারি সকল নির্দেশনা মেনে চলুন।

কারো মধ্যে ভাইরাসের আক্রান্তের উপসর্গগুলো দেখা দিলে দ্রুত নিম্নোক্ত নাম্বারে যোগাযোগ করুন। এগুলো হলো- আইইডিসিআর হটলাইন- ০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০০১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪, ০১৯২৭৭১১৭৮৫।

এছাড়াও রাজশাহীতে সিভিল সার্জন -০১৭১২৫০১৬১১, উপ-পরিচালক, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল- ০১৭১১৩৬৬২৩৫ এবং প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন-০১৭১৩০৯৮৮৭২। অথবা সিটি কর্পোরেশনের সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কার্যালয়ে যোগাযোগ করুন।

মেয়র লিটন বলেন, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ঐতিহ্যবাহী শান্তির শহর রাজশাহী মহানগরীতে করোনাভাইরাসের বিস্তার ও প্রাণহানি রোধে সবাই সতর্ক হোন। আসুন আপনি, আমি সকলে ঐক্যবদ্ধভাবে এই মহামারীর বিস্তার প্রতিরোধ করি। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে আপনাদের সবার সহযোগিতা একান্তভাবে কামনা করছি।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ দৈনিক সানশাইন