ভারতীয় পোশাকের দখলে রাজশাহীর মার্কেট

রাজশাহী

ঈদকে সামনে রেখে নতুন পোশাক নিয়ে নিজেদেরকে সাজিয়ে নিয়েছে রাজশাহীর মার্কেটসহ ছোট বড় দোকানগুলো। প্রতি বছরের মতো এবারো ভারতীয় নাটক আর ছবির নামকরণের পোশাকে ছেয়ে গেছে এসব দোকান। এদিকে দোকানগুলোতে এখনো ক্রেতা সমাগম খুব একটা না হলেও সামনের সপ্তাহ থেকে ঈদ বাজার পুরোদমে জমে উঠবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন ব্যবসায়ীরা।

প্রতি বছরের মতো এবারো ভারতীয় বিভিন্ন সিরিয়াল আর ছবির নামে ঝলমলে পোশাকের পসরায় ঈদ আয়োজনে প্রস্তুত রাজশাহীর দোকানগুলো। এবারে ভরতীয় বাহারি কাপড়গুলো মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল বাহুবলি ২, রাখি, বন্ধন, খোকাবাবু, জামাই রাজা আর পিচ্চি নান্নু। জরি, পাথর, কাঁচ, চুমকির কাজ করা জমকালো এসব পোশাকেই আগ্রহী ক্রেতারা। ক্রেতা চাহিদার কথা মাথায় রেখেই পোশাকগুলোর এমন নামকরণ করা হয় বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় ঈদকে সামনে রেখে মার্কেটগুলোতে ক্রেতা সমাগম খুব একটা নেই। তবে এতে হতাশ নয় বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা। সাহেববাজারের কাপড়পট্টিতে অবস্থিত দোকন মালিকদের সাথে কথা বলে জানা জায়, দোকন গুলোতে আগে থেকেই অনে ক্রেতাই বলে রেখেছের ভারতীয় পোশাকের কথা। তাদের চাহিদা মাথায় রেখে বিক্রেতারাও আনছেন বিভিন্ন নামের ভারতীয় পোশাক। বিক্রেতারা আরও জানিয়েছেন ১০ থেকে ১৫ রোজার পর ক্রেতারা ঈদের বাজার করতে শুরু করে। এ কারণেই দোকানগুলোতে এখনও উল্লেখযোগ্য ক্রেতা চোখে পড়ছে না।

তবে অনেকে আবার ঈদের মার্কেটের ভিড় এড়ানোর জন্য এখন থেকেই ঈদের কেনাকাটা করতে শুরু করে দিয়েছেন। নিউমার্কেটে এমই একজন ক্রেতার লায়লা হকের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, এই ঈদে একটু আগে থেকেই বাজার সেরে নিচ্ছি। ঈদে খুব ভিড় হয়। একারণেই আগে বাজারটা সেরে নেয়া। এবার ঈদে তরা পছন্দ কোন ধরণের কাপড় জিহেঞ্জস করলে তিনি বলেন, সারা বছরতো সুতি বা নরমাল কাপড় কেনা হয়। তবে ঈদে একটু গর্জিয়াস কাপড়ই ভালো লাগে। এবারও ভাবছি এমনটাই নেব। আর এদিকদিয়ে ভারতীয় পোশাকই এগিয়ে বলা চলে।

এদিকে ভারতীয় পোশাকের পাশাপাশি হাল ফ্যাশনের রংবেরঙের দেশীয় পোশাকের প্রতিও ক্রেতাদের ঝোঁক কম নয় বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা। নিউমার্কেট গেটের বিপরিত পাশে অবস্থিত বন্ড কালেকশের ব্যস্থাপকের সাথে কথা হলে তিন বলেন, গত বছরই রাজশাহীতে আমাদের কার্যক্রম চালু হয়, শুধুমাত্র ছেলেদের পোশাক নিয়ে। তবে সময়ের চাহিদায় এখন আমরা আলাদা সাজে মেয়েদের জন্যও বিভিন্ন ধরণের পোশাক তুলছি। যেখানে রয়েছে দেশি পোশাকের কালেকশন।
এ সময় প্রকৃতিতে চলছে রোদ-বৃষ্টির খেলা। আর আবহাওয়ার এই খামখেয়ালির কথা মাথায় রেখেও ক্রেতাদের চাহিদায় রেয়েছে ভিন্নতা। আরাদের চাহিদার কথা মাথায় রেখে তৈরি দেশিয় কাপড়ের পোশাকগুলোর প্রতিও পছন্দ করছেন বেশিরভাগ ক্রেতা। নতুন পোশাক ছাড়া যেকোনো উৎসবই যেনো অসম্পূর্ণ। নতুন পোশাক উৎসবের আমেজকে বাড়িয়ে দেয় বহুগুণে।

খবরঃ দৈনিক সানশাইন

5 thoughts on “ভারতীয় পোশাকের দখলে রাজশাহীর মার্কেট

  1. ভাল তো!!! দেশটাই তো ভারতের দখলে। কথায় বলে —- দেশি কুকুরের হেলাফেলা
    বিদেশি কুকুরের সাথে করছে খেলা ,!!

  2. আপনারা যারা ভারতের প্রতি এত উদাসীন তারা কি জানেন, তৈরি পোশাক খাতে ভারত আমাদের চাইতে কত পিছিয়ে, আপনারা কি এটাও জানেন যে,আমাদের দেশের সেরাটা আমরা চোখেও দেখতে পাইনা,

Comments are closed.