যে কারনে চুল কেটে ফেললেন নেইমার

খেলাধুলা

লা লিগায় লাস পামাসের বিপক্ষে নেইমারকে দেখে কেবল ন্যু ক্যাম্প নয়, যেন চমকে উঠল অযুত-নিযুত ফুটবল দর্শকও! মুণ্ডিত মাথার বার্সা ফরোয়ার্ডকে দেখে চেনাই যায় না! চুল নিয়ে অবশ্য নেইমারের পরীক্ষা-নিরীক্ষা নতুন নয়। তবে এমন চেহারায় তাঁকে আগে কখনো দেখা গিয়েছে কি না, সন্দেহ! প্রশ্ন হলো, কেন সাধের কেশ পুরোটাই কেটে ফেললেন ব্রাজিলীয় সেনসেশন?

কখনো চুলে রং করেন, কখনো ব্যান্ড পরেন—নেইমারের চুলের কত স্টাইল! সেসব স্টাইল অনুসরণ করে বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা তাঁর বহু ভক্ত-সমর্থক। খেলার জন্য তো বটেই, চুলের জন্যও নেইমারের খ্যাতি কোনো অংশে কম নয়। তবে এবারের স্টাইলটা স্বাভাবিকভাবে নিতে পারেনি তাঁর ভক্ত-সমর্থকেরা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ নিয়ে চলছে এন্তার আলোচনা-সমালোচনা।

স্প্যানিশ ক্রীড়া দৈনিক মুন্ডো দেপোর্তিভোর খবর অনুযায়ী, কেবল ভক্তরাই নয়, নেইমারের নতুন চুলের স্টাইল ভালোভাবে নেয়নি তাঁর স্পনসর জিলেট ও পোকার স্টার্সও। ব্রাজিলীয় তারকার নতুন চেহারাটা নাকি পছন্দ হচ্ছে না স্পনসরদের। এ কারণে দুই স্পনসর তাদের নতুন বিজ্ঞাপনে নেইমারের মুণ্ডিত মাথা দেখাতে আগ্রহী নয়। ডিজিটাল পদ্ধতিতে নেইমারের ছবিতে লম্বা চুল জুড়ে দিতে চায় তারা।

দেপোর্তিভো অবশ্য জানিয়েছে, নেইমারের চুল কাটার পেছনে বার্সা সতীর্থ দানি আলভেজের ভূমিকা থাকতে পারে। নিশ্চয় মনে আছে, দুজনই একই চুলের স্টাইলে হাজির হয়েছিলেন ২০১৪ বিশ্বকাপেও। আলভেজের প্ররোচনায় নেইমারের চুল কেটে ফেলাটা তাই বিস্ময়কর কিছু নয়। যদি তা-ই হয়, তবে ক্যানসার-আক্রান্তদের প্রতি সহানুভূতি জানাতে নেইমার চুল কেটেছেন বলে যে খবর, সেটি গুজবই থেকে যাচ্ছে।