যে তারকারা ঘৃণা করেন ফেসবুক

তথ্য প্রযুক্তি বিনোদন

তারাকারা নিজেদের ফেসবুক পেজকে ভেরিফাই করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছেন। কেউ কেউ আবার টাকা দিয়েও নিজের পেজকে ভেরিফাই করছেন। কারণ পেজ ভেরিফাই হলেই নিজের নাম উঠে যাবে পত্রিকার পাতায়। এছাড়া সিনেমা হিট করানোর জন্য এখন গণমাধ্যম ও স্যোশাল নেটওয়ার্কিং সাইটগুলো সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

তবে শুনে আশ্চর্য হবেন যে, বলিউডের অনেক জনপ্রিয় ও গুণী তারকা রয়েছেন যারা কখনো ফেসবুক, টুইটারে নিজের পেজই খুলেননি। নিজের ব্যক্তিগত জীবনকে তারা ভক্তদের সামনে তুলে ধরতেও ভালোবাসেন না। এমনকি স্যোশাল নেটওয়ার্কিং সাইটগুলোর নাম শুনলেই একরাশ বিরক্তি ফুটে ওঠে তাদের চোখেমুখে। ফেসবুক আর টুইটারকে রীতিমতো ঘৃণা করেন এ তারকারা।

ঐশ্বর্য রাই বচ্চন
তার ভক্তরা তাকে বলে বলে মাথা খারাপ হওয়ার জোগাড়। তবে সে চেষ্টা বৃথা। সবসময়ই মিডিয়া হোক বা অন্যকিছু, নিজেকে প্রাইভেট রাখতেই ভালোবাসেন বচ্চন গিন্নি।

রণবীর কাপুর
রণবীর জেনারেশন এক্স-এর সদস্য হলেও তাঁর কোনও ফেসবুক বা টুইটার অ্যাকাউন্ট নেই।

করিনা কাপুর
খুড়তুতো ভাই রণবীরের মতোই স্যোশাল নেটওয়ার্কিং সাইটে নাম লেখাননি করিনা।

আদিত্য চোপড়া
অত্যন্ত লাজুক আদিত্য চোপড়ার কোনো স্যোশাল নেটওয়ার্কিং অ্যাকাউন্ট নেই।

রানি মুখার্জি
সিনেমা, ফেসবুক বা টুইটার, সবকিছু থেকেই নিজেকে সরিয়ে রেখে জমিয়ে সংসার করছেন রানি।

সঞ্জয় লীলা বনশালী
বলিউডের অন্যতম গুণী নির্দেশকও নিজেকে ফেসবুক বা টুইটার থেকে সরিয়ে রেখেছেন।

বিদ্যা বালন
পর্দায় তিনি যতোটা হট, ঠিক ততোটাই ব্যক্তিগত জীবনে সহজ থাকতে ভালোবাসেন বিদ্যা।

সাজিদ নাদিয়াদওয়ালা
হাইওয়ে, ২ স্টেটস, কিকের মতো সিনেমায় নির্দেশনা করবেন না ফেসবুক , টুইটারে মুখ গুজে থাকবেন। ফলে অ্যাকাউন্ট নেই সাজিদেরও।

কঙ্গনা রানাউত
‘কুইন’ কঙ্গনা একের পর এক হিট সিনেমায় অভিনয় করলেও ফেসবুক বা টুইটার অ্যাকাউন্টের করা ‘পিআর’-এ বিশ্বাস করেন না।

ইমরান খান
মামা আমির ফেসবুক বা টুইটারে লাম লেখালেও ভাগনে ইমরানের সেগুলো কোনো অ্যাকাউন্ট নেই

 

সুত্রঃ নিঊজ২৪