যৌন হয়রানির প্রতিবাদ করায় রুয়েট শিক্ষককে মারধর, স্ত্রীর মামলা

রাজশাহী রুয়েট

স্ত্রীকে যৌন হয়রানির প্রতিবাদ করায় রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) শিক্ষক রাশিদুল ইসলামকে মারধর করেছে বখাটেরা। এ ঘটনায় শুক্রবার সন্ধ্যায়, রাশিদুল ইসলামের স্ত্রী তাবাসসুম ফারজানা বাদী হয়ে নগরীর বোয়ালিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারণ চন্দ্র বর্মণ জানান, মামলায় অজ্ঞাতনামা আটজনকে আসামি করা হয়েছে। এদের মধ্যে চারজন ছেলে এবং চারজন মেয়ে। তাদের সবার বয়স ২০ বছরের মধ্যে বলে মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে।

এর আগে, গত ১০ই আগস্ট রাতে রাজশাহী মহানগরীর ব্যস্ততম মনিচত্বর এলাকায় বখাটেদের হামলার শিকার হন রুয়েটের ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগের শিক্ষক রাশিদুল ইসলাম। তিনি প্রধানমন্ত্রীর স্বর্ণ পদক প্রাপ্ত একজন শিক্ষক।

এ নিয়ে শিক্ষক রাশিদুল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন। সেখানে তিনি বলেন, ‘আশপাশে অনেক মানুষ দাঁড়িয়ে দেখলেও কেউ তাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেননি।ম পরে, তার এই পোস্ট ভাইরাল হয়ে যায়। অবশেষে ঘটনার ছয়দিন পর থানায় মামলা করলেন শিক্ষকের স্ত্রী।

বোয়ালিয়া থানার ওসি নিবারণ চন্দ্র বর্মণ জানান, তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। আশপাশে থাকা ক্লোজ সার্কিট (সিসি) ক্যামেরার ফুটেজ দেখেছেন। কিন্তু কিছু বুঝতে পারেননি। এ ঘটনার কোনো প্রত্যক্ষদর্শীও পাওয়া যাচ্ছে না। তবে, তারা বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে তদন্ত কাজ শুরু করেছেন। জড়িতদের দ্রুতই শনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা সম্ভব হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

এদিকে বখাটেদের দৌরাত্ম ও ইভটিজিং দমনে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে জেলা প্রশাসন। জেলা প্রশাসক হামিদুল হক ভ্রাম্যমান আদালত গঠন করে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালাচ্ছেন। এছাড়া, সন্তানদের জেল-জরিমানা থেকে বাঁচাতে সচেতন করার জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাসও দিয়েছেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আরাফাত আমান আজিজ ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করছেন। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বলেন, শনিবার শহরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালানো হয়েছে।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ ডিবিসি নিউজ