রাজশাহীজুড়ে আরও ১২ জনের করোনা শনাক্ত

রাজশাহী রাজশাহী বিভাগ

রাজশাহী বিভাগে আরও ১২ জনের শরীরে প্রাণঘাতি করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে। এ পর্যন্ত বিভাগের আট জেলায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ২৬১ জনের।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা শনাক্ত ১২ জনের মধ্যে ১১ জনই বগুড়া জেলার বাসিন্দা। অন্যজন নাটোরের। নতুন করে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন জয়পুরহাটের ১৫ করোনা রোগী। সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়ে যাওয়া নতুন ১০ জনের বাড়িও এই জেলাতেই।

এ পর্যন্ত হাসপাতালে ভর্তি করোনা রোগীর সংখ্যা ৮৫ জন। সুস্থ হয়ে
হাসপাতাল ছেড়েছেন ৩৭ রোগী। আর বিভাগে করোনায় মৃতের সংখ্যা এখনও দুই জনেই আটকে রয়েছে।

বুধবার দুপুরে স্বাস্থ্য দফতরের বিভাগীয় পরিচালক ডা. গোপেন্দ্র নাথ
আচার্য্য গণমাধ্যমকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, দিনে দিনে রাজশাহী বিভাগে করোনা পরিস্থিতি জটিল হচ্ছে। এখন করোনাভাইরাসের কমিউনিটি সংক্রমণ পর্যায় চলছে। এই অবস্থায় প্রত্যেককে সর্বোচ্চ সর্তক হয়ে হতে হবে। বিনা প্রয়োজনে ঘরের বাইরে বের হওয়া যাবে না। সবসময় জনসমাগম এড়িয়ে চলতে হবে। প্রয়োজনে বের হলে অবশ্যই মাস্ক পড়তে হবে।

এদিকে বিভাগীয় স্বাস্থ্য দফতরের হিসেবে, বিভাগে এখনও সর্বোচ্চ করোনা
সংক্রমণ ধরা পড়েছে জয়পুরহাটে ৭১ জন। এরই মধ্যে সুস্থ হয়ে হাসপাতাল ছেড়েছেন এখানকার ১৫ করোনা রোগী। এখনও হাসপাতালে আছেন ৬৬ জন।

৭০ জনের করোনা ধরা পড়েছে নওগাঁ জেলায়। গত ২৪ ঘণ্টায় এই জেলায় করোনা শনাক্ত হয়নি। এ পর্যন্ত নওগাঁর ১০ জন করোনা জয় করে বাড়ি ফিরেছেন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন ৩ করোনা রোগী।

বগুড়ায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৫২ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ধরা পড়েছে ১১ জনের। তবে সুস্থ হয়েছেন এই জেলার আট করোনা রোগী। আর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ১৫ জন।

রাজশাহীতে করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৭ জন। গত কয়েকদিন ধরেই করোনা শনাক্ত হয়নি এই জেলায়। করোনা জয় করে বড়ি ফিরেছেন এখানকার তিন করোনা রোগী। হাসপাতালে রয়েছেন আরেকজন। বিভাগের প্রথম করোনা রোগী মারা গেছেন এই জেলায়।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও পাবনায় করোনা রোগীর সংখ্যা এখন ১৬ জন করে। গত ২৪ ঘণ্টায় পাবনায় এক জনের করোনা ধরা পড়লেও চাঁপাইনবাবগঞ্জে নতুন করোনা রোগী নেই। করোনা জয় করেছেন পাবনার এক রোগী।

এ পর্যন্ত নাটোরে ১৩ জন এবং সিরাজগঞ্জে ৬ জনের করোনা ধরা পড়েছে। বিভাগে দ্বিতীয় করোনায় মৃত রোগীর বাড়ি নাটোরে। সিরাজগঞ্জে করোনায় কোনো রোগী মৃত্যুর খবর নেই। এই দুই জেলায় করোনা থেকে কোন রোগী সুস্থ হওয়ারও খবর পাওয়া যায়নি।

খবর কৃতজ্ঞতাঃ জাগোনিউজ২৪