রাজশাহীতে আদালতে দোষ স্বীকার শিশু নির্যাতনকারী শান্তর

রাজশাহী

রাজশাহী মহানগরীর কাজলা অক্ট্রয় মোড়ে আড়াই বছরের শিশুকে যৌন নির্যাতনের সাথে জড়িত মামুনুর রশীদ শান্ত (১৪) রোববার (০৬ আগস্ট) দুপুরে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। এর আগে পুলিশের কাছেও ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে সে।

শনিবার (০৫ আগস্ট) মধ্যরাতে নগরীর লক্ষ্মীপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে মতিহার থানা পুলিশ।

নগরীর মতিহার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদী হাসান বলেন, নির্যাতিত শিশুটি রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারের আওতায় ৪১ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

শনিবার রাতে শিশুটির বাবা বাদী হয়ে মামুনুর রশীদ শান্তকে আসামি করে থানায় ধর্ষণ চেষ্টার মামলা দায়ের করেন। পরে মধ্য রাতে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এর আগে শনিবার বিকেল সাড়ে তিনটার দিকে নগরীর অক্ট্রয় মোড়ে আড়াই বছরের ওই শিশুকন্যা যৌন নির্যাতনের শিকার হয়। ঘটনার সাথে জড়িত মামুনুর রশিদ শান্ত রাজশাহীর তানোর উপজেলার সাইফুল ইসলামের ছেলে। তবে নগরীর অক্ট্রয় মোড় এলাকার একটি টিন সেডের ভাড়া বাসায় শান্ত ও তার মা সুনাধান বসবাস করে। আর তার বাবা তানোরে থাকে। শান্ত নগরীর একটি হোটেলের কর্মচারী।

 

একই বাসায় ভাড়া থাকে নির্যাতিত শিশুটির পরিবার। ঘটনার সময় ঘরে একা পেয়ে শান্ত শিশুটিকে যৌন নির্যাতন করে। এ সময় শিশুটি কান্না শুরু করলে শান্ত পালিয়ে যায়। পরে শিশুটির মা শিশুটিকে রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করে। বর্তমানে শিশুটি আশঙ্কামুক্ত।

খবরঃ বাংলানিউজ